Friday , June 14 2024
Breaking News
Home / Countrywide / প্রধানমন্ত্রী নিষ্ঠুর রসিকতা করে কথাটি বলেছেন: মান্না

প্রধানমন্ত্রী নিষ্ঠুর রসিকতা করে কথাটি বলেছেন: মান্না

দেশ জুড়ে বেগম জিয়াকে নিয়ে চলছে বেশ আলোচনা-সমালোচনা। তার শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। এবং তিনি রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে তার সুচিকিৎসা দেশে সম্ভব হচ্ছে না বেল জানিয়েছে দল এবং তার পরিবার। এরই লক্ষ্যে তাকে বিদেশ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। অবশ্যে এই বিষয়ে সরকার অনুমতি দিচ্ছে নিয়ে। এমনকি বাংলাদেশের বর্তমান সরকার শেখ হাসসিনা জানিয়েছেন তার জন্য যতটুকু করার করেছি। এই প্রসঙ্গে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না জানালেন বেশ কিছু কথা।

‘শেখ হাসিনার কথা ছাড়া বাংলাদেশে এখন একটা গাছের পাতাও নড়তে পারে না’ বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। ‘তার (খালেদা জিয়ার) জন্য যতটুকু করার করেছি’ সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় মাহমুদুর রহমান মান্না এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ডাক্তাররা খালেদা জিয়ার একটা অপারেশন করেছিল। সেইসময় তার যে নার্ভটা চিড়ে গেছে। চিকিৎসার ফলে সেটা দুদিন ঠিকমতো চলেছে কিন্তু এটা সাময়িক। এটা ভালোভাবে চিকিৎসার জন্য যে যন্ত্রপাতি বা চিকিৎসা ব্যবস্থা দরকার তা বাংলাদেশে নেই। এর জন্য বিদেশে চিকিৎসার জন্য নেওয়া দরকার, যা এই সরকার দিচ্ছে না। প্রধানমন্ত্রী কত নিষ্ঠুর রসিকতা করে বলেছেন, তার জন্য যতটুকু করার করেছি। কিন্তু এই দেশে কে জানে না যে বাংলাদেশে এখন একটা গাছের পাতা নড়তে পারে না শেখ হাসিনার কথা ছাড়া। মান্না বলেন, খালেদা জিয়া এখন তিলে তিলে মৃ/ত্যুর দিকে যাচ্ছেন। ডাক্তার বলেছেন, গত কয়েক দিন ধরে খুবই কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

বেগম জিয়া দূর্নীতি মামলায় সাজা ভোগ করছেন। এমনকি তার বিরুদ্ধে রয়েছে আরও একধিক মামলা। সব মামলা গুলো এখনও চলমান রয়েছে। অবশ্যে তিনি বর্তমান সময়ে জামিনে রয়েছেন। প্রথমে তাকে ৬ মাসের জন্য জামিন দিলেও পরবর্তিতে ৩ মেয়াদে তার জামিন বৃদ্ধি করেছে সরকার।

About

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *