Wednesday , July 24 2024
Breaking News
Home / Countrywide / এবার হাসপাতালে বিয়ে করলেন প্রেমিকাকে

এবার হাসপাতালে বিয়ে করলেন প্রেমিকাকে

প্রেমে মানুষ অন্ধ হয়ে যায়। প্রেমের অনেক গল্প অমর হয়ে আছে ইতিহাসের পাতায়। প্রেমে পড়ে দূরদেশ থেকে ভিন্ন দেশেও পাড়ি জময় অনেক প্রেমিক প্রেমিকারা। প্রেম ভালোবাসার অনেক নিদর্শন বিশ্বের মানুষের কাছে দৃষ্টান্ত ।এমনি একটি অন্ধ ভালোবাসার বাস্তব কাহিনী নিয়ে সারাদেশের মানুষের মাঝে আলোচনায় উঠে আসে ফাহমিদা ও কামাল ( Kamal ) দম্পতি।

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলায় জটিল রগে আ*ক্রান্ত হয়েছে ফহমিদা যে রোগের কারণে তকে নাফেরার দেশে চলে যেতে হতে পারে বলে মনে করছেন ডাক্তারেরা।তবে মাহমুদুল হাসান ( Mahmudul Hasan ) তার প্রেমে অন্ধ হয়ে হাসপাতালেই তাকে বিবাহের সিদ্ধান্ত নেন।

হাসপাতালের বিছানায় ৯ মার্চ রাতে ( March night ) হাসান ও ফাহমিদা তৈরি করল আরেকটি অমর প্রেমের গল্প।

চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আজিজুল হকের ( Azizul Haque ) প্রথম সন্তান মাহমুদুল হাসান ( Mahmudul Hasan ) উত্তর দক্ষিণ থেকে এমবিএ এবং চট্টগ্রাম ( Chittagong ) নগরীর দক্ষিণ বাকলিয়ায় জন্ম নেওয়া ফাহমিদা কামাল ( Kamal ) ইইউবি ( EUB ) থেকে বিবিএ ও এমবিএ সম্পন্ন করেছেন।

স্বজনরা জানান, লেখাপড়ায় তাদের দুজনের পরিচয় রয়েছে। হাসান একজন সুন্দরী ও স্মার্ট তরুণী ফাহমিদাকে পছন্দ করতে শুরু করে। এরপর ধীরে ধীরে দুজনের প্রেম হয়। সুখ-দুঃখ সবই পূর্ণ। সুখী দাম্পত্য জীবনের স্বপ্ন কত মধুর ছিল আমার চোখের কোণায়।

কিন্তু একী হল! এমন স্বপ্ন সুখের রঙিন উঠানে অন্ধকার। ফহমিদার শরীরে ধরা পড়লো সিরিয়াস রোগ।পরপরই, তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা ( Dhaka ) এভারকেয়ারে এবং পরে ভারতের টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতালে ( Tata Memorial Hospital India ) নিয়ে যাওয়া হয়।

সেখানে দীর্ঘ এক বছর চিকিৎসার পর চিকিৎসকরা সাফ জানিয়ে দেন যে ফাহমিদার চিকিৎসা আর সম্ভব নয়, ইঙ্গিত করে তার বেঁ*চে থাকার সম্ভাবনা নেই।

পরিবারের লোকজন ২০ বছর বয়সী ফাহমিদাকে চট্টগ্রামে নিয়ে এসে চিকিৎসা কেন্দ্রে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসা চলছে। কিন্তু ফাহমিদার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে।

এদিকে ফাহমিদার অসহ্য যন্ত্রণা ও হৃদয়বি*দারক যন্ত্র*ণা সহ্য হচ্ছে না তার প্রেমিক হাসানের। হাসানের ক*ষ্ট ভাগাভাগি করতে চায় ফাহমিদা। চোখের জল মুছে দিতে চায়।

এ ঘটনায় হাসান কঠিন সিদ্ধান্ত নেন। ফাহমিদাকে ম*রতে হলে তার বুকে মাথা রেখে ম*রতে হবে। হাসান পরিবার নিয়ে এসে ফাহমিদাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। মুমূর্ষু ফাহমিদাকে হাসানের বিয়ের প্রস্তাব সবাইকে চমকে দিয়েছে। হাসানকে বোঝানোর সর্বাত্মক চেষ্টা করা হয়। কিন্তু হাসান তার সিদ্ধান্তে অনড়।

অবশেষে উভয় পরিবার রাজি হয়। বিষয়টি ফাহমিদাকে জানানো হয়। অবিশ্বাস্য প্রস্তাব শুনে প্রিয় হাসানের দিকে তাকিয়ে রইলেন। ফাহমিদার মুখে একটা নির্মল স্বর্গীয় হাসি ফুটে উঠল।

অবশেষে বিয়ের প্রস্তুতি নেওয়া হলো। তাদের বিয়ে ৯ মার্চ, ২০২২ তারিখে বদ-এশা মেডিকেল সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। কনে ফাহমিদা পরনে লাল বেনারসি শাড়ি ও সোনার নেকলেস। পাজামা-পাঞ্জাবি পরে বর হাসান। আকদ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। দুজনে একসঙ্গে কেক কাটেন এবং মালা বিনিময় করেন। খেজুর খাওয়ানো হয়।

হাসানের চাচাতো ভাই ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি হাসনাত মোহাম্মদ ইউসুফ বলেন, আমাদের ভাইয়ের ভালোবাসা পূরণের জন্য আমার চাচা ও খালা স্বেচ্ছায় হাসপাতালে গিয়ে তাদের বিয়ের আয়োজন করেন।

হাসানের মা শাহিনা বেগম এক সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, আমার ছেলে হাসান ও ফাহমিদা একে অপরকে ভালোবাসত। তাদের ভালোবাসার মূল্যায়ন করে আমরা পাশে আছি। তিনি বলেন, এই বিয়েতে ফাহমিদার পরিবারের লোকজন খুবই খুশি।

তিনি হাসান ও ফাহমিদার জন্য দোয়া করতে বলেছেন।

উল্লেখ্য, এই ঘটনার পরিপেক্ষিতে এক নেটিজেন যোগাযোগ মাধ্যমের একটি পোষ্টে উল্লেখ্য করেন, এমন ভালোবাসা সবার মাঝে থাকলে সারাবিশ্বের মানুষ হতো একটি পরিবার যেখানে সবাই সবার জন্য কেউই পর নয়। হাসান ও ফাহমিদার জন্য দোয়া করেছেন অনেকেই। ফাহমিদার রোগ যেন সেরে যায় এমনি প্রত্যাশা সবার। তাদের গভীর ভালোবাসার গল্প শুনে আবেগআপ্লুত হয়েছেন অনেকেই।

About Nasimul Islam

Check Also

ধোঁয়া আর বারুদের গন্ধে উত্তপ্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জ্যাব) কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ারশেল-সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। শিক্ষার্থীরাও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *