Monday , July 22 2024
Breaking News
Home / Exclusive / শেষ পর্যন্ত সাঈদির মতো আজহারীকেও যুক্তরাজ্যে নিষিদ্ধ করা হলো

শেষ পর্যন্ত সাঈদির মতো আজহারীকেও যুক্তরাজ্যে নিষিদ্ধ করা হলো

শেষ পর্যন্ত আইনি লড়াইয়ে আর জিততে পারলেন না বাংলাদেশের আলোচিত এবং বর্তমান সময়ের বিতর্কি’ত ইসলামিক বক্তা মিজানুর রহমান আজহারীও। মিজানুর রহমান আজহারির ব্রিটেনে প্রবেশ করার বিষয়ের বিরুদ্ধে মামলার বিচার বিভাগীয় পর্যালোচনা শু’নানি গেল ১৮ অক্টোবর লন্ডন হাইকোর্টের কুইন্স বেঞ্চ বিভাগে অনুষ্ঠিত হয়। শুনানি সমাপ্তির পর বিচারক জাস্টিন থ্রোনটন আজহারির ভিসা বাতিল করা পক্ষে রায় প্রদান করেন, এমনই জানিয়েছে একটি সূত্র।

বিচারক জাস্টিন থ্রোনটন হলেন দেশটির সাবেক লেবার পার্টির একজন জনপ্রিয় নেতা এড মিলিব্যান্ডের সহধর্মিনী। বিভিন্ন সূত্রের বরাতে জানা গেছে, আজহারির আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছিল Authority to carry Scheme 2021 এর 14,e এর ধারা অনুযায়ী। সর্বশেষ যে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট অনুষ্ঠিত হয় আজহারির যুক্তরাজ্য সফরের বিষয় নিয়ে সেখানে তার দেশটিতে প্রবেশের নিষেধাজ্ঞার যে বিষয়টি উত্থাপন করা হয় সেখানে তার চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণতা পেয়েছিল এমপি বব ব্ল্যাকম্যানের বক্তব্য।

সংসদে দেওয়া তার বক্তব্যে বব বলেন, আজহারীর বক্তব্যে ব্রিটেনের মুসলিম কমিউনিটি বৃহৎ অংশ বিভ্রা’ন্ত হতে পারে, সমাজে ঘৃ’ণা ছড়াতে পারে, তাই তাকে ব্রিটেনে প্রবেশ করতে না দেওয়ার প্রস্তাব করেছিলেন। পার্লামেন্টে তার নির্ধারিত বক্তব্যে বলেছেন, বাংলাদেশের ঘৃণা ছড়ানো ইসলামিক বক্তা মাওলানা আজহারীকে লণ্ডনে রয়েল রিজেন্সী হলে ইসলামী কনফারেন্সে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল, সে যুক্তরাজ্যে আসার জন্য কাতারে এসে আটকে আছে। এরকম ঘৃণা ছড়ানো ব্যক্তিকে ব্রিটেনে ঢুকতে দেওয়া ঠিক হবে না। মিজানুর রহমান আজহারী ব্রিটেনে ঢুকলে তার বক্তব্যের মাধ্যমে এখানকার শান্তিপ্রিয় বৃহৎ মুসলিম জনগোষ্ঠী ভুল তথ্য পেয়ে বি’ভ্রান্ত হতে পারে। এমনকি সে অনলাইনেও এই ধরনের ঘৃ’ণা ছড়াতে পারে।

ব্ল্যাক ম্যান এমপি সংসদে মিজানুর রহমানের ভিসা বাতিল বহালের আলোচনার জন্য হোম সেক্রেটারী প্রীতি প্যাটেলের প্রতি আহবান জানিয়েছিলেন।

ব্ল্যাক ম্যান এমপির এই বক্তব্যের পর সংসদ লিডার স্যার জ্যাকব রিস বলেন, বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ, এই দেশে ঘৃ’ণা ছড়ানো একটি মা’/রাত্ন’ক অপ’রা’/ধ। ঘৃ’ণা ছড়ায় এমন কাউকে আমরা এই দেশে প্রবেশ করতে দিতে পারি না। ঘৃ’ণা ছড়ানোর বিরুদ্ধে আমাদের একটি অবস্থান রয়েছে সেটার ভিত্তিতে হোম সেক্রেটারীর কাছে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে।

অন্যদিকে আজহারীকে ব্রিটেনে নিয়ে আসতে আয়োজক, আতাউল্লাহ ফারুক একটি পিটিশন ক্যাম্পেইন শুরু করেছিলন। মিজানুর রহমান আজহারী নিজে ও তার ফে’সবুকে এই সংক্রান্ত একটি বক্তব্য প্রচার করে পিটিশনে তার পক্ষে স্বাক্ষর দেওয়ার অনুরোধ জানান, সর্বশেষ সেখানে প্রায় ৩৯ হাজার মানুষ স্বাক্ষর করেন। তবে এতো কিছু করেও শেষ রক্ষা হয়নি আজহারীর। গত ৩১ অক্টোবর একটি ইসলামী কনফারেন্সে যোগ দিতে মালয়েশিয়া থেকে লন্ডনের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছিলেন মিজানুর রহমান আজহারী। কিন্তু লন্ডনে আসার পথে কাতারে ট্রানজিটে আটকা পড়েন মিজানুর রহমান আজহারী। কাতারের ইমিগ্রেশন থেকে আজহারীকে লন্ডনের বিমানে উঠতে দেওয়া হয়নি। দুই দিন দেন দরবারের পরে ব্রিটিশ সরকার তার ভিসা বাতিল করে দেয়। বাতিল করা ভিসা বহালের জন্য লণ্ডনে আজহারীর পক্ষে আইনি ল’/ড়া’ই চালিয়েছিলেন আয়োজকগণ। যদিও ব্রিটেনে যে অনুষ্ঠানে মিজানুর রহমান আজহারী উপস্থিত থাকার কথা সেই অনুষ্ঠান আয়োজক আইওন টিভি অনুষ্ঠানটি স্থগিত ঘোষণা করেছে।

এই ব্যাপারে হোম অফিসের মিডিয়া এন্ড প্রেস অফিসে যোগাযোগ করা হলে তারা এই বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে অপারগতা প্রকাশ করে। মিজানুর রহমান আজহারীর বিষয়টি নিয়ে তাদের কাছে আরো অনেকেই জানতে চেয়েছে। কিন্তু বাধ্যবাধকতা থাকায় তার কোনো তথ্য দেয়নি। আমন্ত্রণকারীদের পক্ষ থেকেও কোনো ধরনের স্বচ্ছ ধারণা না দেওয়াতে নানা রকম আলোচনা সমালোচনা চলছিল।

লন্ডনের আয়োজকগণ আইনিভাবে আজহারীর যুক্তরাজ্য সফর নিশ্চিত করতে চেয়েছিলেন এবং জরুরী জুডিশিয়াল রিভিউর আবেদন করেছিলেন এবং ভার্চুয়াল আদালতে তার শু’নানি হয়। বিচারক ব্রিটেন প্রবেশে আজহারীর ওপর নিষে’ধাজ্ঞা জা’রি বহাল রাখেন। ভিন্ন ধ’র্ম সম্পর্কে ঘৃণা ছড়ানোর অভিযোগে যুক্তরাজ্যে নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয় আজহারীকে। গত ১৮ নভেম্বর হাইকোর্টের রায়ের বিষয়ে জানতে চাইলে আইওন টিভির সিইও আতাউল্লাহ ফারুক কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি। তিনি বলেন, যেহেতু আইনি বিষয়, আমার আইনজীবীরও নিষেধ আছে এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে।

গত ৩১ অক্টোবর রবিবার থেকে লণ্ডনসহ ব্রিটেনের ৬টি শহরে ইসলামী বক্তব্যের আয়োজন করা হয় ব্রিটেনের আইওন টিভির পক্ষ থেকে। এই অনুষ্ঠান উপলক্ষে সারা ব্রিটেনের বিভিন্ন শহরে ১৫ পাউন্ড থেকে ১০০ পাউণ্ডের মূল্যের ১২ হাজার টিকিট বিক্রি হয়েছিল।

মিজানুর রহমান আজহারীর যুক্তরাজ্য সফরের খবর ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে কমিউনিটিতে নানা ধরনের মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। অনেকেই আইওন টিভির ব্যানারে আজহারির সে দেশে প্রবেশ করাকে স্বাগত জানান, কিন্তু একাত্তরের ঘা’/ত’ক দা’লাল নির্মূল কমিটি হতে আরম্ভ করে প্রগতিশীল ও মুক্তিযু’দ্ধের পক্ষের যারা দেশটিতে রয়েছেন তারা অনেকেই আজহারির সে দেশে সফরের বিরো’ধিতা করে আসছিলেন। মিজানুর রহমান আজহারীর বিভিন্ন বক্তৃতা যেগুলো ধ’র্মীয় বি’/দ্বে’ষ ছড়ায় সেই সকল বক্তব্যের ভিডিও অনেকগুলো ব্রিটিশ সাংসদ হতে আরম্ভ করে হোম অফিস এমনকি বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়েছে। তার এই ভিডিওগুলো সেখানে বিবেচনা করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছিল।

এর আগে ২০০৬ সালের দিকে, দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী, যিনি বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধের সময় নানা ধরনের অ’প/রাধ ঘটানো এবং মানবতাবিরো’ধী অপ/রা’ধের দা’য়ে অভিযুক্ত হয়ে বিচারের পর তাকে যাবজ্জীবন কা’রাদ/ণ্ড প্রদান করে যেটাতে তিনি এখনও কা’রাভো’গ করছেন, তিনি অতীতে চারদলীয় জোট সরকারের এমপি থাকাকালীন যুক্তরাজ্য সরকার তাকে যুক্তরাজ্যে প্রবেশে বাধা দেয়।

About

Check Also

এখনো পরিচয় মেলেনি, মায়ের লাশের পাশে বসে কান্না করা আলোচিত সেই শিশুটির

৩০ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও নিহত নারীর লাশের পাশে কান্না করা শিশুটির পরিচয় পাওয়া যায়নি। মর্গে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *