Sunday , July 21 2024
Breaking News
Home / Entertainment / বোঝাতে ভুল করেছিলাম, আমি আসলে ৪৪ লাখ টাকা পাব না: ইমন খান

বোঝাতে ভুল করেছিলাম, আমি আসলে ৪৪ লাখ টাকা পাব না: ইমন খান

বাংলাদেশের বেশ জনপ্রিয় একজন সঙ্গীতশিল্পী ইমন খান। ‘কেউ বোঝে না মনের ব্যথা’ এ অ্যালবামটির মধ্য দিয়ে রীতিমতো ভক্তদের মাঝে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পান তিনি। তবে গানের পাশাপাশি মাঝে মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হতে দেখা যায় তাকে। আর এরই জের ধরে সম্প্রতি গত বুধবার ফেসবুকে তাঁর ইউটিউব আয়ের হিসাবের একটি স্ক্রিনশট ভক্তদের সঙ্গে ভাগাভাগি করেন তিনি। সেখানে দেখা যায়, তিনি ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ৫১ হাজার ৯৮১ ডলার আয় করেছেন, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৪৪ লাখ টাকার বেশি।

এ বিষয়ে তাঁর সঙ্গে দুবার ফোনে এবং একাধিকবার মেসেঞ্জারে বার্তা আদান-প্রদান হয়। তখনো ইমন বলেন, এই আয় গত ২৮ দিনে তাঁর ইউটিউব চ্যানেল থেকে এসেছে। বারবারই ইমন খান জানান, এই অর্থ তাঁর অ্যাকাউন্টে এসেছে। এই সব আলোচনার ভিত্তিতে গত ২৮ অক্টোবর প্রথম আলো অনলাইন ‘এক মাসে সেই ইমন খানের আয় ৪৪ লাখ টাকার বেশি’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন করে।

কিন্তু এখন ইমন খান বলছেন, ‘আমার ভুল হয়েছে, আমি আসলে ৪৪ লাখ টাকা পাব না। আমি বোঝাতে ভুল করেছিলাম। টাকাটা আসছে ঠিকই কিন্তু এটা আমি সম্পূর্ণ পাব না। ভুলটা আমার হয়েছে।’ ৪৪ লাখ টাকার ঘটনাটি তাহলে কী ছিল? ইমন ব্যাখ্যা করে বলেন, ‘ইউটিউব চ্যানেল থেকে এই ডলার ঠিকই আসছে। কিন্তু আমি পাব এই ডলারের ৩ শতাংশ। আমার এই চ্যানেলটা পরিচালিত হয় বাইরের একটি কান্ট্রি থেকে। তারাই বেশির ভাগ অর্থ পাবে।’

বিষয়টা জেনেও আপনি কেন গোপন করলেন? ইমন বলেন, ‘এটা আমার একটা বড় ভুল। আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত। এমন ভুল আমার আর হবে না। বিষয়টি নিয়ে কেউ ভুল বুঝুক, চাই না। আমি শুধু বোঝাতে চাচ্ছিলাম ৪৪ লাখ টাকা আসছে সত্য। আর এ ঘটনার জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেন গুণী এই সঙ্গীতশিল্পী। এই মুহুর্তে গান নিয়েই বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন ইমন খান। তাছাড়া করোনার সংক্রমনের এ ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্য দিয়েও ভক্তদের মাতিয়ে রেখেছেন তিনি।

About

Check Also

বিনোদন জগতে শোকের ছায়া, মারা গেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপর্ণা

ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী হিনা খান। জানা গেছে তিনি স্তন ক্যান্সারে ভুগছেন। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *