Sunday , July 21 2024
Breaking News
Home / Countrywide / চাকরির ইন্টারভিউতে ৫০০ টাকার টোপ ফেলে হাতিয়ে নেয় লক্ষ টাকা

চাকরির ইন্টারভিউতে ৫০০ টাকার টোপ ফেলে হাতিয়ে নেয় লক্ষ টাকা

সাম্প্রতিক সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে বিভিন্ন ভাবে যারা চাকরিপ্রত্যাশী তাদের সাথে প্রতারণা করার খবর মিডিয়ায় দেখা যায়। এবার তেমনই একটি প্রতারক চক্র ধরা পড়েছে র‍্যাবের হাতে। অনলাইনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে বিভিন্ন পদে চাকরির দেয়ার কথা বলে দেয়া হতো চাকরির বিজ্ঞাপন। আর এই বিজ্ঞাপন দেখে কেউ যোগাযোগ করলে তাকে সাক্ষাৎকারের জন্য ডাকা হতো। সাক্ষাতের সময় তাকে একটি ফরম দেয়া হতো, এবং সেটা পূরণ করার জন্য ৫০০ টাকা দাবি করতো। এরপর কিছুদিন পার হলেই তাদেরকে চাকরিতে যোগদানের জন্য নিয়োগ পত্র দেয়া হবে এটা জানিয়ে ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা দেওয়ার কথা বলতো। আর এইভাবে সারা বছর জুড়ে চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় এই প্রতারক চক্রটি।

দীর্ঘদিন ধরে তারা এই প্রতারণা চালিয়ে আসলেও কাউকে কোনো প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেওয়ার সুনির্দিষ্ট তথ্য দিতে পারেনি চক্রটি। রাজধানীর নিকুঞ্জ এলাকার একটি বাসায় তথাকথিত ‘এনএইচ সিকিউরিটি সার্ভিস লিমিটেডের’ অফিস থেকে চক্রের অন্যতম সদস্য মোসা. সালমা আক্তার মুন্নিকে (২১) গ্রেপ্তার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যা’টালি’য়ন (র‌্যাব-১)।

এ সময় তার কাছ থেকে একটি সিপিইউ, দুটি মোবাইল ফোন, ভু’য়া নিয়োগপত্র, ২০টি ভিজিটিং কার্ড এবং আট পাতা চাকরির বিজ্ঞাপনের স্ক্রিনশর্ট উদ্ধার করা হয়। বুধবার (১৭ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর কারওয়ানবাজার এলাকায় র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান র‌্যাব-১-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আবদুল্লাহ আল মোমেন।

তিনি বলেন, গ্রে’প্তারকৃত সালমা একটি সংঘব’দ্ধ এমএলএম প্রতারক চক্রের সক্রিয় সদস্য। প্র’তারক চক্রটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে তাদের প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেওয়ার কথা বলে প্র’তারণার মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হা’তিয়ে নেয়। এনএএইচ সিকিউরিটিজ নামে কথিত ওই কোম্পানিটি তাদের অফিস থেকে চাকরিপ্রার্থীদের ফোন দিয়ে ইন্টারভিউ দেওয়ার জন্য আসতে বলা হয়।

চাকরি প্রার্থীরা ইন্টারভিউর জন্য অফিসে আসার পর তাদের কাছ থেকে ফরম পূরণ বাবদ ৫০০ টাকা নেওয়া হয়। পরে চাকরিতে যোগদানের আগে পদ অনুসারে ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা জামানত বাবদ আদায় করা হতো। পরবর্তীতে কেউ ওই কোম্পানিতে যোগদান করলে তাদের নিয়োগপত্রে উল্লেখ করা হতো প্রতি মাসে অন্তত ১০ জন নতুন চাকরি প্রার্থী সংগ্রহ করতে হবে। নতুন প্রার্থী সংগ্রহের ভিত্তিতে তাদের বেতন দেওয়া হবে মর্মে আশ্বাস দেওয়ে হতো।

গ্রে’প্তারকৃত সালমা গত ৬ মাসে প্রায় ১ হাজার ২৩৯ জন চাকরিপ্রার্থীকে তাদের কোম্পানির নিয়োগ ফরম পূরণের নামে ১১ লাখ ২৬ হাজার ২০০ টাকা হা’তিয়ে নেয়। কিন্তু গত ৬ মাসে তারা কোনো সিকিউরিটি গার্ড নিয়োগ দিয়েছে মর্মে কোনো তথ্য উপস্থাপন করতে পারেনি।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, সালমা আক্তার মুন্নির শিক্ষাগত যোগ্যতার কোনো সঠিক প্রমাণাদি পাওয়া যায়নি। তবে, তিনি এইচএসসি পাস বলে জানিয়েছেন। হাবিবুর রহমানের সঙ্গে তার পরিচয় সূত্রে ২০২০ সালের শুরু থেকে এই প্রতিষ্ঠান খুলে প্রতা’রণা শুরু করে.

হাবিবের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে র‍্যাবের এই কর্মকর্তা জানান, গ্রে’প্তার হওয়া সালমার নিকট থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে আমরা একটি অভিযান পরিচালনা করি। যেটার উদ্দেশ্য ছিল হাবিবকে গ্রেফ’তার করা। কিন্তু তার খোজ মেলেনি। তবে তাকে গ্রেপ্তার করার জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আমরা আশা করছি, খুব কম সময়ের মধ্যে তাকে আমরা আটক করতে পারব।
আরো প্রশ্ন করা হলে, তিনি বলেন এ ধরনের প্রতা’রণার ঘটনা অহরহই ঘটছে। তবে এটি ঠেকানোর জন্য অবশ্যই সকল মহলের সচেতনতা দরকার। বিভিন্ন গণমাধ্যমে যদি এই বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়, তাহলে মানুষ জানতে সক্ষম হবে। তবে আশা করি জনসচেতনতা সৃষ্টি করার জন্য সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন সংস্থাকে এগিয়ে এসে কাজ করবে।

 

 

About

Check Also

ধোঁয়া আর বারুদের গন্ধে উত্তপ্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জ্যাব) কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ারশেল-সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। শিক্ষার্থীরাও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *