Wednesday , July 24 2024
Breaking News
Home / Countrywide / এসপির দারস্থ হলেন এমপি ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী

এসপির দারস্থ হলেন এমপি ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী

সাধারনত সাংসদ সদস্যদের ডাকে হাজির হন আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা, কিন্তু সেখানে যদি একজন সংসদ সদস্য পুলিশের দারস্থ হন তাহলে বিষয়টি মানুষের দৃষ্টিতে একটু ভিন্ন হিসেবে দেখা দেয়। কারন মানুষ যেটা দেখতে পায় সচরাচর এটা তার বিপরীত। রাজবাড়ী সদর ও গোয়ালন্দ উপজেলাধীন ৯ টি জায়গায় আওয়ামী লীগের পক্ষ হতে বানানো এবং লাগালো ব্যানার, ফেস্টুন ও শুভেচ্ছা গেট ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে। এই অভিযোগ সাধারন কোনো স্থানীয় নেতা করেনি, অভিযোগ করেছেন কাজী কেরামত আলী যিনি রাজবাড়ী-১ (সদর-গোয়ালন্দ) আসনের সংসদ সদস্য (এমপি)।

তিনি তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী। গত রবিবার বিকেলে তিনি রাজবাড়ির পুলিশ সুপারের কাছে (এসপি) লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ন্যায়বিচার চেয়ে।

জাতীয় সংসদ সদস্যের প্যাডে লেখা এই চিঠিতে এমপি লিখেছেন, রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা ও ত্রিবার্ষিক সম্মেলন ঘিরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, কেন্দ্রীয় নেতা ও এমপির ছবিসহ ব্যানার, ফেস্টুন এবং শুভেচ্ছা গেট তৈরি হয়। কিন্তু বর্ধিত সভার আগের রাত (২০ সেপ্টেম্বর) থেকে এ পর্যন্ত দৌলতদিয়া ফেরি ও লঞ্চ ঘাট এলাকা, দৌলতদিয়া বাইপাস সড়ক, দৌলতদিয়া পুলিশ বক্স থেকে গোয়ালন্দ উপজেলা পর্যন্ত, গোয়ালন্দ রেলগেট থেকে খানখানাপুর বড় সেতু পর্যন্ত, গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের সামনে, রাজবাড়ী জেলা পরিষদ থেকে শ্রীপুর পর্যন্ত, জেলা শহরের পাবলিক হেলথ, বড়পুর ও রেলগেট এলাকার ব্যানার, ফেস্টুন এবং শুভেচ্ছা গেট ভাঙা ও ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে। যে কারণে তিনি প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, পাঁচবারের এমপি কাজী কেরামত আলী রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এবং সম্মেলনে সভাপতি প্রার্থী। অন্যদিকে রাজবাড়ী-২ (পাংলা-বালিয়াকান্দি-কালুখালী) আসনের চারবারের এমপি জিল্লুল হাকিম জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সম্মেলনে সভাপতি প্রার্থী। জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আকবর আলী মর্জিও সম্মেলনে সভাপতি প্রার্থী।

এমপি এই অভিযোগের অনুলিপি পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের উপমহাপরিদর্শক, সামরিক গোয়েন্দা (ডিজিএফআই) যশোর শাখার অধিনায়ক, রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক ও জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা (এনএসআই) রাজবাড়ীর উপপরিচালক বরাবর পাঠিয়েছেন।

এম এম শাকিলুজ্জামান যিনি রাজবাড়ীর এসপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি বলেন, ‘ঘটনার বিষয়টি দেখার জন্য ইতিমধ্যে রাজবাড়ী ও গোয়ালন্দ থানায় যারা ভারপ্রাপ্ত সেই সকল কর্মকর্তাদেরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে এই ঘটনার সাথে যারা জড়িতদের তাদেরকে চিহ্নিত করার মাধ্যমে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এটা যারা করছেন তাদের চিন্হিত করার জন্য অভিযান চলমান থাকবে।

About

Check Also

ধোঁয়া আর বারুদের গন্ধে উত্তপ্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জ্যাব) কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ারশেল-সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। শিক্ষার্থীরাও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *