Wednesday , July 24 2024
Breaking News
Home / Countrywide / অবশেষে ওবায়দুল কাদেরের সেই প্রশ্নের জবাব দিলেন মির্জা ফখরুল

অবশেষে ওবায়দুল কাদেরের সেই প্রশ্নের জবাব দিলেন মির্জা ফখরুল

বর্তমান সময়ে ক্ষমতার বাইরে রয়েছে জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। দলটি টানা ৩ মেয়াদে ক্ষমতার বাইরে রয়েছে। এমনকি রাজনৈতিক মাঠে অবহেলিত এবং নি/র্যা/তি/ত। এবং দলটির অসংখ্য নেতাকর্মীদের নামে রয়েছে একাধিক মামলা। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ড. কামালের নেতৃত্বে নির্বাচনে অংশগ্রহন করে দলটি। এরই সুবাধে সম্প্রতি তাদের উদ্দেশ্যে সমালোচনা করেছেন আওয়ামীলীগ দলের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তবে এবার সেই সমালোচনার কঠোর জবাব দিলেন বিএনপি দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

‘আপনাদের নেতা কে’- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের জবাব দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে গতকাল (মঙ্গলবার) আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় ফখরুলকে উদ্দেশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, গতবার তো কামাল হোসেনকে এনে আপনারা নির্বাচনে নেতা বানিয়েছিলেন। আমার দলের পক্ষে, জোটের পক্ষে আমি বলতে চাই- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী নির্বাচনে আমাদের নেতা। আপনাদের নেতা কে? টেমস নদীর পার থেকে পলা/ত/ক দণ্ডিত ব্যক্তি কি নির্বাচনে আপনাদের নেতা! পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী এ পরিচয় বহন করলে বাংলাদেশে আপনাদের (বিএনপি) অপ্রাসঙ্গিক রাজনীতি আরও অপ্রাসঙ্গিক হয়ে যাবে। জনগণ দণ্ডিত পলাতক নেতাকে (তারেক রহমান) কোনোদিনই এদেশের নির্বাচনে নেতা হিসেবে মেনে নেবে না। বুধবার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির এক অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেছেন, নেতার কথা বলে ওবায়দুল কাদের (আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক) সাহেব। আরে নেতা তো একজন আমাদের বাংলাদেশে- দেশনেত্রী খালেদা জিয়া। তিনিই একমাত্র নেত্রী যিনি এই দেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এখনো গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করতে গিয়ে, লড়াই করতে গিয়ে, গৃহে অন্তরীণ হয়ে আছেন। মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে বেআইনিভাবে সাজা দেওয়া হয়েছে।

ফখরুল বলেন, এখনো ঘরে ঘরে গিয়ে পু/লি/শি আ/ক্র/ম/ণ চলছে, হয়রানি হচ্ছে, ত/ল্লা/শি চলছে। কেন, কারণ কী? কারণ বিএনপি জেগে উঠছে। আজকে এই যে আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সাহেবের তত্ত্বাবধায়নে নতুন করে বিএনপিকে সাজানো হচ্ছে, কমিটি গঠন করা হচ্ছে। এতে করে নতুন জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে, নতুন প্রাণের সৃষ্টি হয়েছে। ‘আর সেই জন্যেই আজকে তাদের (সরকার) হৃদকম্প শুরু হয়েছে। তারা ভয় পেয়েছে, কাঁপছে। এজন্য তারা বিএনপির ওপরে চড়াও হয়ে আ/ক্র/ম/ণ করছে। স্পষ্ট করে বলতে চাই, পৃথিবীতে কোনো স্বৈ/রা/চার, কোনো একনায়ক, কোনো ফ্যা/সী/বা/দী শা/স/ক বা কোনো অ/ত্যা/চা/রী শা/স/ক কোনোদিনই টিকে থাকতে পারেনি। জনতার উত্তাল রোষের মধ্য দিয়ে তাদেরকে পরাজয় বরণ করতে হয়েছে। তখন আর তাদেরকে খুঁজে পাওয়া যায় না।’

সরকারের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, এখনো সময় আছে, আপনারা দেওয়ালের লিখনগুলো পড়ুন, মানুষের চোখের ভাষা দেখুন, মানুষের মনের কথা বুঝার চেষ্টা করুন। এখনো সময় আছে, পদত্যাগ করুন আপনাদের ব্যর্থতার জন্য, পদত্যাগ করুন আপনারা যে অপরাধ করেছেন সংবিধানকে লঙ্ঘন করে জনগণের ভোটের অধিকারকে বন্ধ করে দিয়ে, আগের রাত্রে ভোট নিয়ে চুরি করে আপনারা যে অপরাধ করেছেন, সেখানে থেকে যদি রক্ষা পেতে চান অবিলম্বে পদত্যাগ করুন। একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে জনগণ যাতে তাদের পছন্দ মতো সরকার নির্বাচন করতে পারে- সেই ব্যবস্থা করুন। অন্যথায় পালাবার পথ খুঁজে পাবেন না।

প্রসঙ্গত, আগামী দ্বাদশ নির্বাচনকে ঘিরে কঠোর অবস্থানে রয়েছে বিএনপি দল। এবং এই নির্বাচনকে ঘিরে নানা ধরনের পদক্ষেপ গ্রহন করেছে দলটি। এছাড়াও নির্বাচন সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ ভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ার লক্ষ্যে বেশ কয়েকটি দাবি তুলেছে। এমনকি দলটি জানিয়েছে এই সরকারের অধীনে তারা নির্বাচনে অংশ গ্রহরন করবে না। তাদের অভিযোগ রয়েছে এই সরকারের অধীনে সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়।

About

Check Also

ধোঁয়া আর বারুদের গন্ধে উত্তপ্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জ্যাব) কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ারশেল-সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। শিক্ষার্থীরাও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *