Thursday , June 20 2024
Breaking News
Home / Countrywide / সেই আলোচিত ডিসি সুলতানার শাস্তি বাতিল করলেন রাষ্ট্রপতি

সেই আলোচিত ডিসি সুলতানার শাস্তি বাতিল করলেন রাষ্ট্রপতি

গত ১৩ মার্চ মধ্যরাতে নিজ বাস থেকে তুলে নিয়ে সাংবাদিক নির্যাতনের অভিযোগকে কেন্দ্র করে বেশ আলোচনায় আসেন কুড়িগ্রামের সাবেক ডিসি সুলতানা পারভীন। তবে পরবর্তীতে এ অভিযোগের আলোকে কুড়িগ্রাম থেকে সরিয়ে দেয়া হয় তাকে। কিন্তু এ ঘটনায় পরবর্তীতে ডিসি সুলতানাসহ বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেন সাংবাদিক আরিফুল।

আর সেই সূত্র ধরে এবার জান গেল, ডিসি সুলতানা পারভীনের দণ্ড বাতিল করে শাস্তি থেকে রেহাই দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি।

সুলতানা পারভীনের বিরুদ্ধে আসা এ অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় তার বেতন বৃদ্ধি দুই বছরের জন্য স্থগিত রাখার যে ‘লঘুদণ্ড’ সাড়ে তিন মাস আগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় দিয়েছিল, তা বাতিল করে অভিযোগের দায় থেকেও তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

ওএসডি হয়ে থাকা উপসচিব পদমর্যাদার এই কর্মকর্তার শাস্তির আদেশ এসেছিল গত ১০ আগস্ট এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে। সেই প্রজ্ঞাপন বাতিল করে গত ২৩ নভেম্বর আরেকটি প্রজ্ঞাপন জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, সেখানেই সুলতানা পারভীনের শাস্তি বাতিলের বিষয়টি জানানো হয়।

জ্যেষ্ঠ সচিব কে এম আলী আজম স্বাক্ষরিত ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘যেহেতু মোছা. সুলতানা পারভীন তার উপর অরোপিত উল্লিখিত লঘুদণ্ডাদেশ মুকুফের জন্য গত ৬ সেপ্টেম্বর মহামান্য রাষ্ট্রপতির সমীপে আপিল আবেদন পেশ করলে মাহামান্য রাষ্ট্রপতি সদয় হয়ে মোছা. সুলাতানা পারভীনের আপিল আবেদন বিবেচনা করে পূর্বে প্রদত্ত দুই বছরের জন্য ‘বেতন বৃদ্ধি স্থগিত রাখা’ নামীয় দণ্ডদেশ বাতিল করে তাকে অভিযোগের দায় হতে অব্যাহতি প্রদান করেছেন।’

‘সেহেতু মোছা. সুলতানা পারভীন, প্রাক্তন জেলা প্রশাসক, কুড়িগ্রাম, বর্তমানে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (উপসচিব), জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়- এর বিরুদ্ধে রুজুকৃত বিভাগীয় মামলায় দুই বছররের জন্য বেতন বৃদ্ধি ‘স্থাগিত রাখা’ নমনীয় লঘুদণ্ড প্রদান করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের গত ১০ অগাস্টের প্রজ্ঞাপনটি বাতিলপূর্বক তাকে অভিযোগের দায় থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হলো।’

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি আরিফুল ইসলাম রিগানকে গত বছর ১৩ মার্চ গভীর রাতে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে মাদক রাখার অভিযোগে এক বছরের কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রিন্টু বিকাশ চাকমা ওই অভিযান পরিচালনা করেন। কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সিনিয়র সহকারী কমিশনার নাজিম উদ্দিন এবং সহকারী কমিশনার এস এম রাহাতুল ইসলামও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

কুড়িগ্রামের ওই সময়কার ডিসি সুলতানা পারভীনের নির্দেশেই আরিফুল ইসলামকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাজা দেওয়া হয় বলে আরিফুলের পরিবারের অভিযোগ করেন।

বিষয়টি হাই কোর্টেও গড়ায়। পরে রিগানকে জামিন দেয় কুড়িগ্রামের আদালত।

অভিযোগের সত্যতা পাওয়ার পর ডিসি সুলতানা পারভীন, আরডিসি নাজিম উদ্দিন, সহকারী কমিশনার রিন্টু বিকাশ চাকমা ও এস এম রাহাতুল ইসলামকে কুড়িগ্রাম থেকে সরিয়ে দেয় সরকার।

পরে ২০২০ সালের ১৯ মার্চ ডিসি সুলতানা পারভীন, সাবেক তিনজন সহকারী কমিশনারসহ ৩৫-৪০ জনের বিরুদ্ধে কুড়িগ্রাম সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন সাংবাদিক আরিফুল। হাই কোর্ট ওই অভিযোগ মামলা হিসেবে রেকর্ডের নির্দেশ দেওয়ার পাশাপাশি ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাকে দেওয়া সাজা স্থগিত করে।

এরপর ২৬ মার্চ সুলতানা পারভীনসহ তার কার্যালয়ের সাবেক তিনজন সহকারী কমিশনারের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা হয়।

সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালায় ‘অসদাচরণ’ এর অভিযোগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ‘কারণ দর্শাও’ নোটিস দিলে সুলতানা পারভীন লিখিত জবাব দাখিল করে ব্যক্তিগত শুনানি চান।

ওই বছরের ৯ অগাস্ট শুনানিতে হাজির হয়ে তিনি যে মৌখিক বক্তব্য ও লিখিত জবাব দেন, তা ‘সন্তোষজনক বিবেচিত না হওয়ায়’ বিভাগীয় মামলাটি তদন্তের জন্য তদন্ত বোর্ড গঠন করা হয়।

এদিকে বোর্ডের প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানা যায়, ডিসি সুলতানা পারভীনের বিরুদ্ধে ওঠা ঐ অভিযোগের আলোকে তদন্ত চালানোর একপর্যায়ে এ অভিযোগের সত্যতা বেরিয়ে আসে। তবে ডিসি সুলতানার এমন ঘটনায় রীতিমতো গোটা এলাকাজুড়ে বেশ শোরগোলের সৃষ্টি হতে দেখ যায়।

About

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *