Friday , April 19 2024
Breaking News
Home / opinion / আপনি ১৮০ মিলিয়ন বাংলাদেশির শত্রুতা সৃষ্টির ঝুঁকি নিচ্ছেন: পিনাকী

আপনি ১৮০ মিলিয়ন বাংলাদেশির শত্রুতা সৃষ্টির ঝুঁকি নিচ্ছেন: পিনাকী

বাংলাদেশের গনতান্ত্রিক ব্যবস্থা ধ্বংসের নেপথ্যে ভারত।যার প্রমাণ মিলেছে ১৪ ও ১৮ এবং ২৪ সালের নির্বাচনে।ভারত নিজেদের স্বার্থে বাংলাদেশের ১৮ কোটি মানুষের ভোটাধিকার হরণ করে একটি দলকে অবৈধ্য ভাবে ক্ষমতায় রেখেছে।যা কোনো গনতান্ত্রিক দেশের জনগণের কাম্য নয়।অথচ ভারতের পক্ষে থেকে বলা হয়েছে তারা আভ্যন্তরীন বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে না কিন্তু বাস্তবে ভিন্ন চিত্র প্রকাশ পেয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন পিনাকী ভট্টাচার্য হুবহু পাঠকদের জন্য নিচে দেওয়া হলো।

প্রিয় ভারত,

অটল সংকল্প নিয়ে ইতিহাসের মোড়ে দাড়াও। বাংলাদেশের “ইন্ডিয়া আউট” প্রোগ্রাম নিয়ে আপনি যে জটিল মুহূর্তের মুখোমুখি হচ্ছেন তা স্বীকার করুন; এটি দেখে দেখলে একটি অসাধারণ ভুল হবে, যা আপনার বার্ষিকিতে অতুলনীয়।

আপনার নিষ্ক্রিয়তা শুধু বাংলাদেশ নয় বিশ্বমঞ্চে আপনার অবস্থানকে ধ্বংস করে দেওয়ার হুমকি দেয়।

এই দুর্যোগে পতন এড়াতে এখনই সময় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারে রুপান্তরিত করে হাসিনার পদত্যাগ নিশ্চিত করুন।
আপনার সমর্থন হাসিনাকে অবৈধ ভাবে আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার দখল করে, ফ্যাসিষ্ট শাসন প্রতিষ্ঠা করতে দিয়েছে। এই ঐতিহাসিক ভুল পদক্ষেপের মালিকানা নিন এবং আপনার নীতিকে অবশ্যই ফিরিয়ে আনুন।

আমাদের ডাক শুনে নাও, আর তুমি ভুল করবে না। আমরা আপনার দৃঢ় প্রতিবেশী হিসেবে এবং বিশ্ব সম্প্রদায়ের দায়িত্বশীল সদস্য হিসেবে অঙ্গীকারবদ্ধ, আপনার সাথে পারস্পরিক সম্মান ও মর্যাদার আত্মায় জড়িত থাকার জন্য।

আমাদের অনুরোধ উপেক্ষা করুন, এবং আপনি 180 মিলিয়ন বাংলাদেশির শত্রুতা সৃষ্টি করার ঝুঁকি নিচ্ছেন- একটি শিজম যা নিরাময় হতে কয়েক বছর সময় লাগতে পারে। আমাদের সংকল্প, আমাদের বীরত্ব এবং আমাদের কারণের প্রতি আমাদের প্রতিশ্রুতিকে কখনো অবমূল্যায়ন করবেন না।
এখন অভিনয় করার সময়। যে বাস্তবতা অপেক্ষা করছে তার প্রতি জেগে ওঠো।

About Babu

Check Also

ভারতীয় হাই কমিশন সেলস কলে যায় বাংলাদেশ থেকে ভারতে রোগী যাওয়া কমে গেলে: পিনাকী

সম্প্রতি দ্বাদশ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ আবারও একতরফা ভোট করে ক্ষমতা দখল করেছে।আর আওয়ামীলীগকে অবৈধ্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *