Monday , June 24 2024
Breaking News
Home / Entertainment / মিডিয়া কি চায়, বন্ধ করুন এসব ও একটা ছোট বাচ্চা : সাবা

মিডিয়া কি চায়, বন্ধ করুন এসব ও একটা ছোট বাচ্চা : সাবা

বলিউডের অন্যতম সফল দুই তারকা ও সুখী তারকা দম্পতি সাইফ আলি খান ও কারিনা কাপুর খান। এরই মধ্যে একসঙ্গে ৮ টি বছর পার করেছেন তারা। সংসারের পাশাপাশি অভিনয়ও চালিয়ে যাচ্ছেন এই দম্পতি। বর্তমানে দুই সন্তানের অভিভাবক তারা। তবে জন্মের পর থেকেই সাংবাদিকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে সাইফ-কারিনা দম্পতির বড় ছেলে তৈমুর আলি খান। কিন্তু অন্যদিকে ছোট নবাব এতোটাই জনপ্রিয় যে এখন বাবা-মায়ের থেকেও বড় তারকা বনে গেছে।

তৈমুর আলি খানের পাশাপাশি সম্প্রতি পাপারাজ্জিদের নতুন আকর্ষণ হয়ে উঠেছে তার ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলি খান (জেহ)।

গত ফেব্রুয়ারি সাইফ-কারিনা দম্পতির ঘর আলো করে এসেছে তাদের দ্বিতীয় পুত্র সন্তান।

অতীতে তৈমুরকে নিয়ে পাপারাজ্জিরা যেসব কাণ্ড করেছে তারপর এই তারকা দম্পতি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তারা তাদের দ্বিতীয় ছেলেকে মিডিয়ার ঝলকানি থেকে দূরে রাখবেন। করেছিলেনও তাই। দীর্ঘদিন জেহকে পাপারাজ্জিদের নজর থেকে আড়াল করে রেখেছিলেন সাইফিনা।

কিন্তু মাস খানের আগেই নিজেই দ্বিতীয় ছেলেকে প্রকাশ্যে আনেন কারিনা কাপুর খান। এরপর থেকে জেহ যেখানেই যাচ্ছে সেখানেই তাকে ঘিরে ধরতে শুরু করেছে পাপারাজ্জিরা। এই বিষয়টি মোটেও পছন্দ হচ্ছে না জেহর ফুফু সাবা আলি খানের। তাকে অত্যাচার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন সাবা।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে জেহ’র একটি ভিডিও। যেখানে দেখা যাচ্ছে, গাড়ির ভেতরে ন্যানির কোলে বসে আসে সে। তার মুখটি থেকে বোঝাই যাচ্ছে সে পাপারাজ্জিদের ক্যামেরার আলোর ঝলকানি দেখে ভয় পাচ্ছে।

ভাইরাল হওয়া সেই ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে শেয়ার করে সাবা আলি খান লিখেছেন, মিডিয়া কি চায়? একটি বাচ্চাকে নির্যাতন করতে? বন্ধ করুন এসব। ও একটা ছোট বাচ্চা।

এদিকে বড় ছেলে তৈমুর আলি খানকে কেন্দ্র করে অনেক স্বপ্ন দেখছেন কারিনা। এর আগে এক সাক্ষাৎকারে এসে তৈমুরকে ক্রিকেটার হিসেবে দেখার ইচ্ছা প্রকাশ করেন এই নায়িকা। তবে অপরদিকে সাইফ দাবি করেন, তাকে একজন সফল অভিনেতা হিসেবে দেখতে চান তিনি।

About

Check Also

হঠাৎ না ফেরার দেশে জনপ্রিয় অভিনেতা, শোবিজ অঙ্গনে শোকের ছায়া

না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের অভিনেতা পার্থসারথি দেব। শুক্রবার (২২ মার্চ) কলকাতার বাঙ্গুর হাসপাতালে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *