Thursday , June 20 2024
Breaking News
Home / Countrywide / নিজের স্কুলের ছাত্রীকে তুলে নিলেন ইংরেজি শিক্ষক

নিজের স্কুলের ছাত্রীকে তুলে নিলেন ইংরেজি শিক্ষক

যে বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন সেই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে অপ’/হ’রণের ঘটনায় বোরহান উদ্দিন নামের ৩৮ বছর বয়সী এক শিক্ষককে গ্রে’/প্তা’র করা হয়েছে। গতকাল (শুক্রবার) বিকেলের দিকে কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া সদর উপজেলায় অবস্থিত চৌদ্দশত উচ্চ বিদ্যালয়ের ঐ ইংরেজি শিক্ষককে আ’টক করার পর কিশোরগঞ্জ আদালতে প্রেরন করে পু’/লি’/শ। বিকেলে আদালত প্রাথমিকভাবে শু’/নানির পর তাকে কা’রাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এই ঘটনার পর ঐ এলাকায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনার সৃষ্টি হয়।

পু’/লি’/শ জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে পাকুন্দিয়া উপজেলার কোদালিয়া বাজার থেকে তাকে গ্রে’ফতার করে পু’/লি’/শ। গ্রে’ফতার শিক্ষক বোরহান কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বত্রিশ এলাকার আলতাফ উদ্দিনের ছেলে। জানা গেছে, পাকুন্দিয়া উপজেলার নবম শ্রেণির ওই ছাত্রী গত ১১ অক্টোবর সন্ধ্যায় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে গেলে একদল দু’র্বৃ/ত্ত তাকে জো’/রপূর্বক অপ’হ’রণ করে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মামা পাকুন্দিয়া থা’/নায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এ ঘটনার পর থেকে পু’/লি’শ ব্যাপক তৎপরতা শুরু করলে ১৩ অক্টোবর রাত ১০টার দিকে পার্শ্ববর্তী পুলেরঘট বাজার এলাকায় তাকে ছেড়ে দেয় দু/র্বৃ’ত্ত দল। খবর পেয়ে পু’/লি’/শ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। মেডিকেল পরীক্ষা করানো শেষে ২২ ধা’রায় জবানব’ন্দি প্রদানের জন্য ১৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকালে তাকে কোর্টে পাঠায় পু’/লি’শ।

ঘটনার পর ঐ ছাত্রী তার অপ’হ/রণের বিষয়ে সমস্ত রহ’স্য প্রকাশ করলে পাকুন্দিয়া থা’/নায় একটি অপ’হর/ণের মা’মলা দা’/য়ের করা হয়। মো। সারোয়ার জাহান যিনি পাকুন্দিয়া থা’/নার ওসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি জানান, গত বৃহস্পতিবার রাতের দিকে পাকুন্দিয়া উপজেলাধীন কোদালিয়া বাজারে তারা অভিযান চালান এবং সেখান থেকে শিক্ষক বোরহানকে আ’টক করা হয়। এরপরের দিন অর্থাৎ শুক্রবার দুপুরের দিকে তাকে কিশোরগঞ্জ আদালতে পাঠানো হলে আদালত বিকেলের দিকে তাকে কা’রাগা/রে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

 

About

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *