Thursday , February 22 2024
Breaking News
Home / Countrywide / এবার নির্বাচন নিয়ে সরকারকে সতর্ক করে কঠোর বার্তা দিলেন অলি

এবার নির্বাচন নিয়ে সরকারকে সতর্ক করে কঠোর বার্তা দিলেন অলি

সরকার ক্ষমতায় থাকতে দেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংস করেছে। যার জন্য দেশের জনগণ তাদের ভোটাধিকার হারিয়েছে। উন্নয়নের নামে মেগা প্রকল্প থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট করেছে যার ফলে অর্থনৈতিক সংকটের তৈরী হয়েছে। অথচ সে বিষয়ে তাদের কোনো মাথা ব্যাথা নেই কিন্তু আবারও বিনা ভোটে ক্ষমতায় থাকার পাঁয়তারা করছে। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও দেশে সুষ্ঠু শাসন গড়ার অঙ্গিকার করে যা বললেন (এলডিপি) সভাপতি ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ বীর বিক্রম।

লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) সভাপতি ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ বীর বিক্রম বলেছেন, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) অঙ্গীকার হচ্ছে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও স্বৈরাচারমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার। এলডিপি সাধারণ মানুষের জন্য রাজনীতি করে।

এলডিপি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে।

২৬ অক্টোবর এলডিপির ১৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) এলডিপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন রাজ্জাক স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে কর্নেল অলি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ষ/ড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতা দখলকারী নিশিরাতের জনবিচ্ছিন্ন সরকার মনে করে আওয়ামী লীগ দেশের মালিক এবং তাদের সংগঠনের সদস্যরা এর স/ত্ত্বাধিকারী। গত ১৩ বছরে দেশে মানবাধিকার, ন্যায়বিচার, সুশাসন ও জবাবদিহিতা নেই। এর সুযোগ নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী ও বেশ কয়েকজন দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারী অন্যায়ভাবে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য একে অপরের পরিপূরক হিসেবে কাজ করছে।

কর্নেল অলি বলেন, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিতে জনগণ বিভ্রান্ত। কিন্তু আওয়ামী লীগ লুটপাটে ব্যস্ত। তারা মেগা প্রকল্পের নামে দু/র্নীতির মাধ্যমে জনগণের সম্পদ লু/টপাট করছে। আওয়ামী লীগ সরকার সুপরিকল্পিতভাবে দেশের প্রতিটি প্রতিষ্ঠান ও প্রতিষ্ঠানকে ধ্বং/স করেছে। বর্তমানে কোনো প্রতিষ্ঠান বা প্রতিষ্ঠান প্রশ্নের ঊর্ধ্বে নয়। অনেকেই বর্তমান সরকারের পুরোহিত হিসেবে কাজ করছেন। সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় মা/দক, অসামাজিক কার্যকলাপ নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। দুর্নীতি, অ/ন্যায়, অবিচার ও অ/ত্যাচার সমাজের বুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

অলি আরও বলেন, কয়েক মাস আগেও প্রতিবেশী ভারতের অর্থনীতি আমাদের চেয়ে অনেক খারাপ ছিল। কিন্তু এখন তারা আমাদের চেয়ে এগিয়ে। দুঃখের বিষয়, চাটুকারিতা, দু/র্নীতি, দায়িত্বহীনতা, ভোট না দেওয়া, গভীর রাতে নির্বাচন, ঔদ্ধত্য ও স্বার্থপরতা এই সরকারের পতনের প্রধান কারণ হিসেবে চিহ্নিত হবে।

সরকার বর্তমান পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে এসে নির্দলীয় সরকার গঠন করবে বলে মনে করেন ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ বীর বিক্রম।

প্রসঙ্গত, সরকার ক্ষমতায় থাকতে বিরোধী দলের ওপর ভিন্ন কৌশলে দমন পীড়ন চালাচ্ছে মন্তব্য করে ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ বীর বিক্রম। তিনি বলেন, সরকার এ নৈরাজ্যের পথ পরিহার না করলে তার মাশুল দিতে হবে।

About Babu

Check Also

এবার মুশতাকের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ তুললেন তিশার মা

তিশা ও খন্দকার মোশতাক আহমেদের বিয়ে নিয়ে প্রথমবারের মতো মিডিয়ার সামনে এলেন সিনথিয়া ইসলাম তিশার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *