Sunday , May 26 2024
Breaking News
Home / Countrywide / বিয়ের আগেই কনের বাড়িতে গিয়ে হবু শ্বশুরের অনৈতিক কাজ, মেনে নিতে পারছে না কেউ

বিয়ের আগেই কনের বাড়িতে গিয়ে হবু শ্বশুরের অনৈতিক কাজ, মেনে নিতে পারছে না কেউ

এখনো হয়নি ছেলের বিয়ে, আর এর আগেই কনের বাড়িতে হবু শ্বশুরের এমন অপ্রত্যাশিত কাণ্ড রীতিমতো অবাক হওয়ার মতোই। জানা গেছে, বিয়ের আগেই যৌতুক হিসেবে কনের বাড়ি থেকে গরু আনতে গিয়ে এলাকাবাসীদের হাতে হয়েছেন হবু শ্বশুর নাজিম উদ্দিন। এ ঘটনায় গোটা এলাকাজুড়ে বেশ চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে।

এমন ঘটনা ঘটেছে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার গোলমুন্ডা ইউনিয়নের ঘোড়ামারা এলাকায়।

জানা যায়, গত ৩ অক্টোবর একই ইউনিয়নের কেয়ার বাজার এলাকার নাজিম উদ্দিনের ছেলে শাহ আলমের সঙ্গে ওই এলাকার দিনমজুর আশিদুল ইসলামের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী মেয়ের বিয়ের রেজিস্ট্রি হয়। বিদায় অনুষ্ঠানের দিন হিসেবে ৬ অক্টোবর নির্ধারণ করা হয়। ঘটক ছয়ফাল হোসেনের মাধ্যমে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা যৌতুক নির্ধারণ করা হয়। এর মধ্যে কনে অগ্রিম ৬০ হাজার টাকা দিয়েছেন। বাকি টাকা না পাওয়ায় বরের বাবা নাজিম উদ্দিন সাত সকাল কনের বাড়ির কাউকে না জানিয়ে তাদের একমাত্র সম্বল দুধের গাভী ও বাছুর নিতে আসেন।

বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি কনের পক্ষের লোকজন ও স্থানীয় বাসিন্দারা। তাই তারা তাকে আটক করেছে। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় ৩ জন ইউপি সদস্য ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে গ্রামের শালিসের মাধ্যমে দুধের গাভী ও গরুর দাম এক লাখ টাকা নির্ধারণ করে গরু দুটি হস্তান্তর করা হয়। বরের বাবার কাছে। তখনই যৌতুক লোভী নাজিম উদ্দিন বিয়ের অনুষ্ঠানের অনুমতি দেন। ঘটক ছয়ফাল হোসেন জানান, ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা (যৌতুক) নির্ধারণ করা হয়েছে। বিয়ে রেজিস্ট্রির সময় ৬০ হাজার টাকা অগ্রিম প্রদান করা হয়েছে এবং কালেমা পাঠের সময় একটি গরু ও নগদ ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হবে।

এদিকে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের মধ্যে আব্দুল কাইয়ুম ও অহিনুর রহমান জানান, কষ্ট হলেও মেয়ের সুখের জন্য তার বাবা-মা এসব দিয়ে দিতেন। কিন্তু এই যৌতুক লোভী বরের বাবা নাজিম উদ্দিন মেয়ের বিদায়ের আগে যৌতুকের জন্য গরু সংগ্রহ করতে সকাল সাতটায় কনের বাড়িতে আসবেন তা আমরা কেউই মেনে নিতে পারিনি। যৌতুক হল বিয়ের সময় ছেলে কর্তৃক মেয়ের কাছ থেকে আর্থিক বা অন্যান্য সুবিধা গ্রহণ করা। যৌতুক একটি সামাজিক ব্যাধি। দেশের আইন ও ইসলামে যৌতুক নিষিদ্ধ হলেও প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে এখনও এই প্রথা চালু রয়েছে। এর নজির দেখা গেছে উপজেলার ঘোড়ামারায়।

ছেলেকে বিয়ে দেয়ার আগেই কনের বাড়িতে হবু শ্বশুর নাজিম উদ্দিনের এমন ন্যাক্কারজনক কাজের পর, ওই কনের সঙ্গে তার ছেলের বিয়ে হবে আদৌও হবে কিনা কেউ জানে না।

About Rasel Khalifa

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *