Tuesday , May 21 2024
Breaking News
Home / opinion / ইডেন কলেজের এক অসহায় ছাত্রীর স্বীকারোক্তি: ‘কিসের লেখাপড়া, ইডেনে সতিত্ব নিয়ে বেঁচে থাকাই দায়,শুধু গোঙানির শব্দ শুনতাম’

ইডেন কলেজের এক অসহায় ছাত্রীর স্বীকারোক্তি: ‘কিসের লেখাপড়া, ইডেনে সতিত্ব নিয়ে বেঁচে থাকাই দায়,শুধু গোঙানির শব্দ শুনতাম’

রাজধানী ঢাকার স্বনামধন্য একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম ইডেন মহিলা কলেজ। একটা সময়ে এই কলেজ নিয়ে প্রশংসার শেষ ছিল না সারা দেশবাসীর। কিন্তু সেই কলেজের অন্ধকার দিকটাই এবার বেরিয়ে এসেছে সবার সামনে। একে একে প্রকাশ পাচ্ছে সেখানে সব নোংরামি আর নিষিদ্ধ সব কাজ। সম্প্রতি একটি স্ট্যাটাস ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। সেখানে এডেনের একজন শিক্ষার্থী জানিয়েছেন অনেক কথা। পার্থকে উদেশ্যে তার সেই লেখনী তুলে ধরা হলো হুবহু:-

|| ইডেন লাইফ কষ্টের||

ইডেন নিয়ে মুখ খুললে শেষ হবে না। কিসের লেখাপড়া? সতিত্ব নিয়ে বেঁচে থাকাই দায়। শুধু ইডেন নয়; মেয়েরা এখন কোনো ভার্সিটিতেই নিরাপদ নয়। সুন্দরী হলে তো বর্গা ফ্রী। হল তো হল নয়; যেন পতিতালয়। জীবনে বহু বান্ধবীর কাছ থেকে শুনেছি তাদের সতিত্ব হারানোর হৃদয় বিদারক কাহিনী। অনেক মেয়ে ওপেন মুখ না খুললেও, বান্ধবীদের কাছে বলে। আমার ইডেন লাইফ কেটে গেছে। প্রতিদিন দুরাকাত নামাজ পড়ে সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করতাম যেন, শকুনদের চোখে না পড়ি। আল্লাহ পাক দোয়া কবুল করেছেন। আমাদের ম্যাচ মেম্বাররা সবাই ছিলাম নামাজি। ইডেন লাইফের এক্সপেরিয়েন্স আছে অনেক। অনেক সময় দেখতাম, চোখের সামনেই এক বান্ধবী কে ডেকে নিয়ে গেছে, একটু কান দিলে শুনতাম তার কষ্টের গোঙানির শব্দ। পাশের ম্যাচে ঢুকতেই দেখিছি বহু কিছু। কিছুই করার নেই, ছিলো না। নিজেকে সেভ রাখতে পারাই যে বড়ো বিষয়। পাশের রুমের এক বোন গেছে তিনদিন আগে। কয়েকজন পৌরুষ ষাঁড় নিজেদের কাম বাসনা পূরণ করে ছেড়ে দিয়েছে। অগত্য হলে এসে কাঁদলো। শুনলাম, শান্তনা দিলাম, যাওয়ার আগেই তো ভাবতে পারতে। এইগুলা তো রুটিন হিসেবে চলে। অনেক মেয়ে ভিভিআইপি হোস্টেলে নম্বর দিয়ে আসে। ইডেনের ছাত্রীদের ডিএনএ টেস্ট করলে অনেক মেয়ের ব্লাডে জীবাণু পাওয়া যাবে। হল গুলোতে সতিত্ব ঠিক রেখে থাকা ইম্পসিবল। ইডেন নয় ; বান্ধবীরা যারা অন্যান্য কলেজ-ভার্সিটিতে পড়ে খবর নিয়েছি, ফিজিক্যালি যন্ত্রণা আছেই। ভোগের রাজ্যে সবাই পাহারাদার। সবই চলে নিয়মিত, বাড়িতে যায় ভদ্র সেজে। এভারেজ ছেলেরা দায়ী নয়; কিছু মেয়েও আছে দুশ্চরিত্রের। ওরা যতো পুরুষাঙ্গ দেখেছে, জীবনে এতো কাঁচা মরিচও দেখে নাই। অনেক মেয়ে নিজ থেকেই ছেলে পটায়, নাইট কাটে নিজ খরচে। আজীমপুর, বকশীবাজারে ম্যাচ নেয় কয়েকজন মিলে। এই তো ম্যাচ নয়; সে”ক্স’ পাওয়ার কম্পিটিশন হাউস। এই ম্যাচেই কুমারিত্ব শেষ। সব হারিয়ে বাড়িতে যায় বউ হয়ে ঢাকায় ফিরে।

প্রসঙ্গত, গেল বেশ কিছু দিন আগে ইডেন কলেজের ছাত্রলীগের দুই গ্রূপের সংঘর্ষ শুরু হয়। হল আর পদ পাওয়া নিয়েই মূলত এই সংঘর্ষ এর সূত্রপাত ঘটে। এর প্রিয় বের হতে থাকে অজানা সব কাহিনী। শ্রেষ্ঠত্যের মুখোশে ঢাকা ইডেন কলেজ এর অন্ধকার দিক ফুটে ওঠে সবার সামনে। আর এটা নিয়েই এখন সারা দেশে চলছে আলোচনা আর সমালোচনা।

About Rasel Khalifa

Check Also

ভারতীয় হাই কমিশন সেলস কলে যায় বাংলাদেশ থেকে ভারতে রোগী যাওয়া কমে গেলে: পিনাকী

সম্প্রতি দ্বাদশ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ আবারও একতরফা ভোট করে ক্ষমতা দখল করেছে।আর আওয়ামীলীগকে অবৈধ্য …

5 comments

  1. Very bad, may Allah bless all

  2. মোঃ খলিলুররহমান

    খুবই খারাপ কথা। এমন হলে আমাদের মেয়েরা কোথায় পড়তে যাবে?? আল্লাহ সকলকে হেদায়েত দান করুন।

  3. Eden er madamder o ai obosta?

  4. বাজে অবস্থা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *