Thursday , June 20 2024
Breaking News
Home / Countrywide / এবার এক ঘণ্টার জন্য মেয়র হলেন ১৬ বছরের কিশোরী

এবার এক ঘণ্টার জন্য মেয়র হলেন ১৬ বছরের কিশোরী

বাস্তব জীবনে এমনও কিছু ঘটনা ঘটে, যা রীতিমতো সিনেমাকেও হার মানায়। আর এরই জের ধরে সম্প্রতি এবার ঘটলো ঠিক এমনই একটি ঘটনা। জানা গেছে, এবার ১ ঘন্টার জন্য টাঙ্গাইল পৌরসভায় প্রতীকী মেয়রের দায়িত্ব পেলেন মাত্র ১৬ বছরের এক কিশোরী। যার নাম হুমাইরা বিনতে হারুন। সোমবার দুপুরে মেয়র সিরাজুল হক আলমগীরের কাছ থেকে ১ ঘন্টার জন্য মেয়রের দায়িত্ব নেন তিনি।

 

টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়রের কক্ষে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের গার্লস টেকওভার কর্মসূচির আয়োজন করেন ন্যাশনাল চিলড্রেনস টাস্ক ফোর্স (এনসিটিএফ) টাঙ্গাইল জেলা শাখা।

এদিকে ১ ঘন্টার জন্য মেয়রের দায়িত্ব পালমকালে হুমাইরা বিনতে হারুন বলেন, এই প্রতীকী দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে একজন কিশোরী কন্যা হয়েও টাঙ্গাইল পৌরসভার মতো একটি ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠানের নেতৃত্ব প্রদানকারীর ভূমিকা পালন করতে পেরে নিজেকে ধন্য ও গর্বিত মনে করছি। এতে আমি আরও আত্মবিশ্বাসী এবং নিজের স্বপ্ন পূরণে অঙ্গীকারাবদ্ধ হয়েছি। বর্তমানে টাঙ্গাইল পৌরসভার অবকাঠামো, পরিবেশ ও বিনোদন এবং সৌন্দর্যবর্ধনে ব্যাপক কাজ চলমান রয়েছে। তবে টাঙ্গাইল পৌরসভাকে নারী ও শিশুদের জন্য নিরাপদ ও যৌন হয়রানী বা নির্যাতন এবং বৈষম্যহীন শ্রেষ্ঠ শহর হিসেবে গড়ে তুলতে কয়েকটি প্রস্তাব উপস্থাপন করেছি।

টাঙ্গাইল পৌরসভার অফিসিয়াল কভার ফাইলের মাধ্যমে দায়িত্ব হস্তান্তর করেন বর্তমান পৌরসভার মেয়র সিরাজুল হক আলমগীর ও দায়িত্ব গ্রহণ করেন ন্যাশনাল চিলড্রেনস টাস্ক ফোর্স (এনসিটিএফ) টাঙ্গাইল জেলা শাখার ভাইস প্রেসিডেন্ট বিন্দুবাসিনী বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী হুমাইরা বিনতে হারুন।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র সিরাজুল হক আলমগীর আরটিভি নিউজকে বলেন, নারীদের বা আমাদের কন্যাদের একটু বেশি সুযোগ দিলে তারা অনেক কিছু করতে পারে। তাদের সুযোগ দেওয়া প্রয়োজন। আজ আমার খুবই ভালো লাগছে। এ রকম একজন কন্যা মেয়রের চেয়ারে বসে তার অবস্থান থেকে বক্তব্য দিচ্ছে। এ রকম বয়সে আমরা ঠিক কথাও বলতে পারতাম না। আজকে প্রতীকী মেয়রের দাবি ও সুপারিশগুলো আমরা আমাদের কর্মপরিকল্পনায় অন্তর্ভুক্ত করব এবং বাস্তবায়নে উদ্যোগ গ্রহণ করব।

গার্লস টেকওভার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা প্ল্যান ইন্টারন্যাশনালের একটি বৈশ্বিক কার্যক্রম। কন্যা শিশুরা সমান সুযোগ এবং সমঅধিকার পেলে, বদলে দিতে পারে তাদের নিজের জীবন। তাদের আশপাশের সমাজ এবং সমাজের মানুষদের এমন বিশ্বাস থেকেই ‘গার্লস টেকওভার কর্মসূচির উদ্যোগ গ্রহণ এবং বাস্তবায়ন করে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল। এই কর্মসূচির মাধ্যমে একজন কিশোরী, কন্যা শিশু অথবা যুব নারীকে নেতৃত্ব প্রদানকারীর ভূমিকা পালন করতে সহায়তা করা হয়। যাতে তার আত্মবিশ্বাস বাড়ে এবং নিজের স্বপ্ন পূরণে সে অঙ্গীকারাবদ্ধ হয়।

একটা সময়ে পুরুষদের বেশি প্রাধান্য দেয়া হত। তবে বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বদৌলাতে এ ধারা পরিবর্তন হয়েছে। এখন পুরুষদের পাশাপাশি নারীরাও সমান অধিক পাচ্ছে। এছাড়া বিশ্বদরবারে বাংলাদেশ আজ মাথা উঁচু করে দাড়িয়েছে, এর অবদান নারীদেরও কোনো অংশে কম নয়।

About

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *