Thursday , June 20 2024
Breaking News
Home / Countrywide / মন্ত্রী-এমপিদের জন্য অসন্তোষ দেখা দিয়েছে আ.লীগের বোর্ডে

মন্ত্রী-এমপিদের জন্য অসন্তোষ দেখা দিয়েছে আ.লীগের বোর্ডে

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের তরফ থেকে যে প্রার্থী দেওয়া হচ্ছে সেটা চূড়ান্ত করতে গিয়ে ঘাম ছুটে যাচ্ছে দলটির মনোনয়ন বোর্ডের নেতাদের। প্রতিটি ইউনিয়ন থেকে গড়ে ৫ জনের বেশি মনোনয়নপ্রত্যাশী মনোনয়ন চেয়েছেন। তাছাড়া ওই এলাকার যারা মন্ত্রী -এমপি হিসেবে রয়েছেন তাদের পছন্দের লোক কেও মনোনয়ন দেয়ার জন্য রয়েছে চা’প। কাজী জাফর উল্যাহ যিনি দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হিসেবে রয়েছেন তিনি আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে সেখানে ক্ষো’/ভ ব্যক্ত করেছেন। দেশের একটি জনপ্রিয় গণমাধ্যমকে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওই বৈঠকে উপস্থিত থাকা বেশ কয়েকজন নেতা।

গতকাল বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ময়মনসিংহ বিভাগের ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়। আজ আবারও মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় চট্টগ্রাম বিভাগের ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে।

আওয়ামী লীগের সূত্রগুলো জানায়, প্রতিটি উপজেলায়ই প্রার্থী মনোনয়নের ক্ষেত্রে সংসদ সদস্যদের নানা সুপারিশ থাকছে। পছন্দের প্রার্থীর মনোনয়নের জন্য মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যদের কাছে কেউ লিখিত সুপারিশ করেছেন, কেউ আবার অপছন্দের প্রার্থীকে মনোনয়ন না দিতে জোরালো অনুরোধ জানিয়েছেন। গত পাঁচ দিন ধরে প্রতিদিনই মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিদিনই মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যদের কাছে অনেক মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যের অনুরোধ থাকছে। মনোনয়ন বোর্ডে সে সুপারিশ বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনাও করা হচ্ছে।

সূত্রগুলো জানায়, মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যদের এসব সুপারিশের বিষয়ে গতকাল মনোনয়ন বোর্ডের সভায় ক্ষো’/ভ জানান বোর্ডের সদস্য কাজী জাফর উল্যাহ। তিনি বলেন, ‘এমপি, মন্ত্রীরা যদি এত সুপারিশ করেন, যদি তাঁরাই বলে দেন—একে দিলে ভালো হয়, ওকে দেওয়া যাবে না, তাহলে আমাদের নিয়ে মনোনয়ন বোর্ডের সভা করে লাভ কী? আমরা এখানে কী করব?’

সভায় উপস্থিত একজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘কাজী জাফর উল্যাহ অসন্তোষ জানানোর পর মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যদের কেউই কোনো উত্তর দেননি।’জানতে চাইলে কাজী জাফর উল্যাহ বলেন, ‘অনেক মন্ত্রী ও এমপি প্রার্থীদের পক্ষে সুপারিশ করছেন। সেই বিষয়টিই মনোনয়ন বোর্ডের সভায় তুলে ধরেছি।’

অভিযোগ পেলে প্রার্থী পরিবর্তন

গত পাঁচ দিনে দেশের সাত বিভাগের ইউনিয়নগুলোতে প্রার্থী ঘোষণা করেছে আওয়ামী লীগ। এসব ইউনিয়নে মনোনয়ন পাওয়া অনেকের বিরু’/দ্ধেই নানা অভিযোগ জমা দেওয়া হয়েছে। আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ড এসব অভিযোগের কোনোটির সত্যতা মিললে সেখানে প্রার্থী পরিবর্তন করে দিচ্ছে। গতকাল পর্যন্ত খুলনা বিভাগের তিনটি ইউনিয়নে প্রার্থী পরিবর্তন করে দেওয়া হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সূত্রগুলো জানায়, গতকাল মনোনয়ন বোর্ডের সভায় নড়াইল সদরে বিছালি ইউনিয়ন পরিষদের প্রার্থী পরিবর্তন করা হয়। শনিবার মনোনয়ন বোর্ডের সভায় ইউনিয়নটিতে মনোনয়ন দেওয়া হয় মো. ইমরুল গাজীকে। গতকাল সভায় ইমরুল গাজীর বিরু’দ্ধে নানা অভিযোগ তথ্য-প্র’মাণসহ উত্থাপিত হয়। অভিযোগগুলো বিশ্বাসযোগ্য মনে হওয়ায় মনোনয়ন পরির্তন করে এস এম আনিসুল ইসলামকে মনোনয়ন দেওয়া হয়।

মনোনয়ন বোর্ডের একজন সদস্য নাম না জানানোর শর্তে দেশের একটি জনপ্রিয় গণমাধ্যমকে বলেন, ইতিমধ্যে অনেক ইউনিয়ন পর্যায়ে বেশ অনেক অনেক অভিযোগ জমা পড়েছে। যে সকল অভিযোগ করা হয়েছে সেগুলোর অধিকাংশই সত্য নয়। যারা মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত হয়েছেন তারাও অনেক ধরনের অভিযোগ তুলেছেন। তবে এমন নয় যে তাদের সকল অভিযোগে মিথ্যা। যারা মনোনয়ন পেয়েছেন তাদের বিরু’দ্ধে যদি কোন অভিযোগ পাওয়া যায়, তাহলে তাদেরকে সেই প্রার্থিতা পরিবর্তন করে দেয়া হয়েছে। সামনে আরো বেশ কয়েকটি ইউনিয়নের প্রার্থিতা পরিবর্তন করা হতে পারে।

About

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *