Thursday , May 30 2024
Breaking News
Home / Exclusive / বিশেষ এক করণে এনজিওর মালিককে গলায় ‍জুতার মালা পরিয়ে সারা গ্রাম ঘুরালেন এলাকাবাসী

বিশেষ এক করণে এনজিওর মালিককে গলায় ‍জুতার মালা পরিয়ে সারা গ্রাম ঘুরালেন এলাকাবাসী

মানুষের সাথে প্রতারণা এমন ঘটনা আজ নতুন নয়।  তবে যত দিন যাচ্ছে তত দিনে প্রতারকরা তাদের প্রতারণার ফাঁদ করছে উন্নত।  প্রদানের জন্য বিভিন্ন ধরনের নিত্য নতুন  কায়দা রক্ত করছে তারা।  তবে এলাকাবাসীর হাতে পার পেল না  এনজিওর  নামে লোকেদের সাথে প্রতারণা করা এই যুবক।

বরগুনার তালতলীতে ঘর দেওয়ার নামে গরীবদের কাছ থেকে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে এক এনজিও মালিকের গলায় জুতার মালা পরিয়ে শহর প্রদক্ষিণ করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাতে এ ঘটনা ঘটে। আসামি শাহীন খান শরীয়তপুরের হোসেন খানের ছেলে। তিনি বাংলাদেশ সমবায় সমিতির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান।

স্থানীয়রা জানান, শাহিন খান বাংলাদেশ সমবায় কল্যাণ সমিতির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হওয়ার ভান করে তালতলীতে গরিবদের ঘর, গরু-ছাগল দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা করে দেন। প্রায় ১৩টি পরিবারের কাছ থেকে ৯২ হাজার টাকা নেওয়ার অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

তিনি আরও বলেন, মাস পেরিয়ে গেলেও কোনো সাহায্য না পাওয়ায় স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছ থেকে শাহীন অগ্নিদগ্ধ। শুক্রবার তিনি এনজিওটি ভুয়া বলে স্বীকার করেন। এরপর স্থানীয়রা তাকে জুতার মালা পরিয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে।

এ বিষয়ে জানতে শাহীন খানের মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল করা হলেও ব্যবহৃত নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, এ ধরনের কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, এমন বড় ধরনের অপরাধ করার পরেও তার বিরুদ্ধে এখনো থানায় অভিযোগ করা হয়নি।  কি কারণে এলাকাবাসী তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেনি এ বিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।  তবে টাকা আত্মসাৎ করি এই এনজিওর মালিকের বিরুদ্ধে যদি এলাকাবাসী কোন অভিযোগ করে তাহলে অভিযোগের প্রেক্ষিতে  তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ওসি কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু।

About Nasimul Islam

Check Also

লোভে পড়ে নিজের ভাইকে বিয়ে করলেন বোন, নেট দুনিয়া তোলপাড়

ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যে টাকার জন্য প্রীতি যাদব নামের এক নারী তার ভাইকে বিয়ে করেছেন। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *