Sunday , May 26 2024
Breaking News
Home / Countrywide / প্রধানমন্ত্রীর কাছে ১ম শ্রেণির ছাত্রের চিঠি: আমার কোনো দুঃখ নেই, এরপর যেন এমনটি না হয় এটাই দাবি

প্রধানমন্ত্রীর কাছে ১ম শ্রেণির ছাত্রের চিঠি: আমার কোনো দুঃখ নেই, এরপর যেন এমনটি না হয় এটাই দাবি

মাঝে মধ্যেই নানা সমস্যার কথা তুলে ধরে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর চিঠি পাঠাতে দেখা যায় শিক্ষার্থীদর। আর এরই ধারাবাহিকতার মধ্যে দিয়ে এবার প্রধানমন্ত্রীর কাছে উপবৃত্তির টাকা না পেয়ে চিঠি দিলো প্রথম শ্রেণির এক ছাত্র।

প্রথম শ্রেণির ছাত্র জুনায়েদ সিদ্দিকের উপবৃত্তির টাকা দিয়ে একটি নতুন ব্যাগ ও ছাতা কেনার কথা ছিল। কিন্তু জুনায়েদ সেই টাকা পাননি। তাই নতুন ব্যাগ-ছাতা কেনা হয়নি। এ আক্ষেপ লুকাতে পারেনি রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার তেবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এই শিশু শিক্ষার্থী।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর তিনি প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি খোলা চিঠি লেখেন। তার বাবা সিরাজুল ইসলাম চিঠির ছবি তুলে ফেসবুক ওয়ালে পোস্ট করেন। মুহূর্তেই তা ভাইরাল হয়ে যায়।

জুনায়েদ সিদ্দিক তার চিঠিতে লিখেছে, ‘আমার উপবৃত্তির টাকা আমি এখনো পাইনি। বাবা বলেছিল উপবৃত্তির টাকা পেলে স্কুল ব্যাগ আর ছাতা কিনে দেবে। কিন্তু আর তা হলো না। স্যারদের মাধ্যমে জানতে পারলাম, কেউ আমার টাকা তুলে নিয়েছে। প্রতিদিন আমাকে ছেঁড়া ব্যাগ আর ভাঙা ছাতা নিয়ে স্কুলে যেতে হয়। তাতে আমার কোনো দুঃখ নেই। এরপর যেন এমনটি না হয় এটাই দাবি।’

তেবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মফির উদ্দিন মন্ডল মনে করেন, জুনায়েদ সিদ্দিক নগদ টাকা প্রতারণার শিকার হয়েছেন। তিনি বলেন, বিদ্যালয়ে ১২৭ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। এর মধ্যে জুনায়েদসহ ২১ জন প্রথম শ্রেণিতে। সরকার নতুন জামাকাপড়ের জন্য ১০০০ টাকা এবং প্রতি মাসে ১৫০ টাকা হারে উপবৃত্তি দেয়। এই টাকা বাবা-মায়ের কাছে নগদ হিসাবে আসে। অনেকে উপবৃত্তি তুলে নিতে পারলেও কেউ কেউ পারেননি। জুনায়েদও যে উপবৃত্তির টাকা পায়নি তা তিনি জানতেন না। তার চিঠি ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর তিনি জানতে পারেন। আসলে, এটি সম্পর্কে তাদের কিছু করার নেই।

এদিকে শিশু জুনায়েদ সিদ্দিকের লেখা চিঠিটি রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিলের নজরে এসেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল রানাকে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

ইউএনও বলেন, শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) খবর পেয়ে জুনায়েদকে ফোন করি। দুপুর নাগাদ বাবা ও স্কুলের প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে আসেন। তার হাতে নতুন ছাতা ও ব্যাগসহ বিভিন্ন উপহার হস্তান্তর করা হয়।

এ সময়ে সংবাদ মাধ্যমকে আরো ইউএনও আরো জানান, ওই শিশু কিভাবে তার প্রাপ্য টাকা থেকে বঞ্চিত হলো, তা খুঁটিয়ে দেখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। একই সাথে ওই শিশুর পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি।

About Rasel Khalifa

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *