Tuesday , May 21 2024
Breaking News
Home / Countrywide / বিয়ের আসরে এমন ঘটনা ঘটলো হবু বর ও কাজি বিয়ের আসর থেকে দৌড়ে পালিয়ে গেল

বিয়ের আসরে এমন ঘটনা ঘটলো হবু বর ও কাজি বিয়ের আসর থেকে দৌড়ে পালিয়ে গেল

সব কিছুর একটি নির্দিষ্ট সময় থাকে, সেই সময়ের পূর্বে কোনোকিছু করা হলে তার ফল ভালো হয় না। অনেক পূর্ব থ্বেকেই বাল্য বিবাহের রীতি চলে আসছে। পরিপূর্ণ বয়স না হওয়াতেই মেয়েদেরকে দেওয়া হচ্ছে বিয়ে ফলে শশুড়বাড়ি গিয়ে মেয়েদেরকে পড়তে হচ্ছে নানরকম সমস্যায়, আর সেই সমস্যাগুলো খুবই দুঃখজনক। সম্প্রতি জানা গিয়েছে বাল্যবিবাহ পণ্ড: বর-শ্বশুর কারাগারে, কাজি পলাতক।

নোয়াখালীর চাটখিলে বাল্যবিবাহ বন্ধ করে বরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ঘটনায় মেয়ের বাবা মিজানুর রহমান ও ভাবী বর শাহাদাত হোসেনকে পৃথকভাবে সাজা দেওয়া হয়েছে। ঘটনার পর স্থানীয় কাজী বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে পালিয়ে যায়।

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টার দিকে উপজেলার রামনারায়ণপুর ইউনিয়নের বৈকন্ঠপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। চাটখিল উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ ইমরানুল হক ভূঁইয়া এ অভিযান পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, একই গ্রামের শাহাদাত হোসেনের সঙ্গে মল্লিকা দীঘিরপাড় এলাকার এক কিশোরীর (১৪) বিয়ে ঠিক হয়। মেয়েটি গ্রামের একটি মাদ্রাসার নবম শ্রেণির ছাত্রী। সোমবার বিকেলে তাদের গ্রামের বাড়িতে মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে বাল্য বিবাহের সকল আয়োজন বন্ধ করা হয়। এ ছাড়া মেয়েকে কম বয়সে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করায় বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে মেয়েটির বাবাকে ৬ মাসের কারাদণ্ড এবং বর শাহাদাত হোসেনকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বিয়ে করতে আসার জন্য।

চাটখিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও ​​ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহম্মদ ইমরানুল হক ভূঁইয়া জানান, বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে মেয়ের বাবাকে ৬ মাসের কারাদণ্ড এবং বিয়ের চেষ্টার অভিযোগে বরকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে দুজনকে থানার মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পাশাপাশি আদালত মেয়ের বয়স ১৮ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না এবং ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বর ওই কিশোরীকে বিয়ে করবেন না মর্মে মুচলেকা নেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, একটি মেয়ের পরিপূর্ণ বয়স না হলে তাকে কখনো বিয়ে দেওয়া উচিত না বলে মনে করেই সবাই। কেননা এই অল্প বয়সে একটি মেয়ে শশুড়বাড়ি গিয়ে সবকিছুর সাথে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে না ফলে ঘটে অনেক অশান্তি। একটি মেয়ের জীবনে অনেক স্বপ্ন থাকতে পারে। বাল্য বিবাহের কারনে সেই সকল স্বপ্ন অচিরেই মাটিতে মিশে যাই।

About Shafique Hasan

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *