Tuesday , May 21 2024
Breaking News
Home / Countrywide / বাংলাদেশের মহা এক ইতিহাসের সাক্ষী হলো ফারুকীর মেয়ে ইলহাম

বাংলাদেশের মহা এক ইতিহাসের সাক্ষী হলো ফারুকীর মেয়ে ইলহাম

এবারের সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের নারী ফুটবল দলের টাইগাররা অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়ে ইতিহাস গড়ে ফেললো, যেটা আসলে সাফ গেমসে বাংলাদেশের একটি বড় অর্জন। নেপালের দশরথের রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের নারী ফুটবলাররা স্বাগতিকদের ৩-১ গোলে হারিয়ে দিয়ে বাংলাদেশের জন্য গর্ব অর্জন করলেন। আর এই বিজয়ে প্রধানমণ্ত্রী শেখ হাসিনাও তদেরকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

খেলার শুরু থেকেই ফুটবলপ্রেমীদের চোখ ছিল টাইগারদের দিকে। তারা দুর্দান্ত খেলে দর্শকদের উত্তেজনা বাড়তে থাকে। অবশেষে বিজয়ের হাসিতে উল্লাসে মেতে ওঠে গোটা বাংলা।

একমাত্র মেয়ে ইলহাম নুসরাত ফারুকীকে নিয়ে পুরো খেলাটি দেখেছেন তারকা নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। তিনি নারী টাইগারদের জয়ের আনন্দ প্রকাশ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন।

ফারুকী লিখেছেন, আমি এবং আমার মেয়ে ঝিরঝিরে ব্রডকাস্টেও পুরো খেলা দেখেছি, হইচই করেছি, চিৎকার করেছি। আমি জানি না সে (ইলহাম) কিছু বুঝতে পারলো কি না, বা মনে থাকবে কিনা ও যখন বড় হবে; বাংলাদেশের এক মহান ইতিহাসের সাক্ষী তিনি।

নারী টাইগারদের অভিনন্দন জানিয়ে নির্মাতা লিখেছেন, অভিনন্দন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলকে। তোমরা সাফ চ্যাম্পিয়ন না হলেও আমাদের চোখে চ্যাম্পিয়নই থাকতে। সকল প্রকার মিসোজিনি, টীকা-টিপ্পনি, বাধা ডিঙিয়ে যে পথে তোমরা চলেছো, তাতে তোমরা প্রতিদিনেরই চ্যাম্পিয়ন।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সাল থেকে প্রতিটি সাফ চ্যাম্পিয়নশিপেই খেলছে বাংলাদেশ। প্রথম সাফল্য আসে ২০১৬ সালের আসরে। সে সময় টাইগাররা রানার্স আপ হয়েছিল। এবার এসেছে কাঙ্ক্ষিত সাফল্য। চ্যাম্পিয়নের শিরোপা ঘরে তুলেছেন সাবিনা খাতুন-কৃষ্ণা রানী সরকার।

সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের পুরো টুর্নামেন্টজুড়ে অপরাজিত থাকার পাশাপাশি, টাইগারেরা ৫টি ম্যাচে মোট ২৩টি গোল করেছে। বিপরীতে মাত্র ১ গোল হজম করেছে। তাও জমজমাট ফাইনালে। এই খেলার মাধ্যমে বাংলাদেশের নারীরা দেখিয়ে দিলো বাংলাদেশের নারীরা বিজয় আনতে সক্ষম। শুধু বাংলাদেশের মানুষেরা নয় বাংলাদেশের নারী ফুটবলারদের বিজয়ে উল্লাস করেন আরো অনেক দেশের ফুটবল প্রেমীরা।

About bisso Jit

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *