Sunday , May 26 2024
Breaking News
Home / Countrywide / সেই সানজানার ঘটনা: তদন্তে এবার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেল পুলিশ

সেই সানজানার ঘটনা: তদন্তে এবার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেল পুলিশ

গত ২৭ আগস্ট দুপুরে রাজধানী ঢাকার দক্ষিণখানের মোল্লারটেক এলাকার একটি ১০ তলা ভবন থেকে লাফিয়ে আত্মহনন করেন সানজানা মোসাদ্দিকা নাম এক শিক্ষার্থী। তবে আ”ত্ম”হ”ন”নের পথ বেঁছে নেয়ার আগেই তার মৃত্যুর জন্য বাবা শাহীনকে দায়ী করে জান তিনি। এমনকি একটি চিরকুটে বাবাকে ‘”রে”পি”স্ট”’ বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বেসরকারি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সপ্তম সেমিস্টারের ছাত্রী ছিলেন

এ ঘটনায় মামলা হলে বাবা শাহীনকে আটক করে র‌্যাব।

মৃত্যুর আগে একটি ‘চিরকুট’ লিখেছিলেন সঞ্জনা। যেখানে তিনি তার বাবাকে ”রে”পি”স্ট’ ‘ বলে উল্লেখ করেন।

বাবাকে নিয়ে কেন এমনটা লিখলেন সানজানা? অভিযুক্ত বাবা এখন কোথায়? তদন্তে কি কোনো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেল কিনা?

এ বিষয়ে তদন্ত সংশ্লিষ্টরা সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, সানজানা মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন। বিশেষ করে পারিবারিক কলহ তার জীবনে বড় প্রভাব ফেলেছিল বলে মনে করা হয়। এর অন্যতম কারণ বাবা-মায়ের মধ্যে সম্পর্কহীনতা, বাবার দ্বিতীয় বিয়ে, দারিদ্র্য এবং পড়াশোনার খরচ ঠিকমতো না দেওয়া বলে মনে করছে পুলিশ। এসব কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ‘আ”ত্ম’হ”নন করেছে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে বলে তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

চিরকুটে সঞ্জনা তার বাবাকে কেন ‘”ধ”র্ষ”’ক”’ বাবা’ বলে উল্লেখ করলেন এমন প্রশ্নে তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলেন, সঞ্জনার বাবা ও মা আলাদা হয়ে গেলেও তিনি (শাহীন আলম) নিয়মিত ওই বাড়িতে যেতেন। তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্কও চলতো, যা মেয়ে হিসেবে সঞ্জনা মেনে নিতে পারেনি। কারণ সানজানার কারণেই তার মা (বাবার দ্বিতীয় বিয়ে) ডিভোর্স নিয়েছিলেন। তারপরও এই বাসায় বাবার নিয়মিত আসা-যাওয়া পছন্দ করতেন না সানজানা। এসব কারণেই চিরকুটে বাবাকে এমননটা বলে আখ্যাযিত করেছিলেন।

এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন সানজানার সহপাঠীরা। একই সঙ্গে তারা শাহীনকে কঠোর শাস্তির মুখোমখি করার জন্য প্রশাসনের কাজে আবেদন করেন তারা। যাতে এমনটা করার সাহস আর কেউ না পায়।

About Rasel Khalifa

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *