Saturday , May 25 2024
Breaking News
Home / Countrywide / ফের রাজনীতিতে বাজিমাত করলেন শামীম ওসমান, পারলেন না মেয়র আইভীও

ফের রাজনীতিতে বাজিমাত করলেন শামীম ওসমান, পারলেন না মেয়র আইভীও

নারায়ণগঞ্জে একজন নির্ভরযোগ্য আওয়ামী লীগ নেতা হলেন শাবনূর শামীম ওসমান। তিনি একের পর এক বাজিমাত করে যাচ্ছেন রাজনীতিতে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একজন প্রিয় পাত্র শামীম ওসমান। কারণ প্রধানমন্ত্রীর নিকট একটি বড় ধরনের আস্থা অর্জন করেছেন তিনি। তাই নারায়ণগঞ্জে ‘একাই একশো’ এই রাজনৈতিক নেতা ফের মনোনয়ন নিয়ে করলেন বাজিমাত।

তার তদবিরে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ৭১ এর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি চন্দন শীল। চন্দনশীল শামীম ওসমানের ঘনিষ্ঠ বন্ধু এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলের সদস্য। চন্দনশীলের মনোনয়ন পেয়ে উচ্ছ্বসিত দলীয় নেতাকর্মীরা। ২০০১ সালের ১৬ জুন চাষাড়া আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে বো”মা হা”মলায় চন্দনশীল তার দুই পা হারান। কিন্তু রাজনীতি থেকে পিছপা হননি।

শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী হিসেবে চন্দন শীলের নাম ঘোষণা করে। দলীয় মনোনয়ন লড়াইয়ে অংশ নিলেও জাতীয় শ্রমিক লীগের সাবেক সভাপতি আবদুল মতিন মাস্টার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, সহসভাপতি আরজু রহমান ভূইয়া, মিজানুর রহমান বাচ্চু, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সভাপতি আনোয়ার হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান ও নারী ও শি”শু নি”/র্যাতন আদালতের বিশেষ পিপি রকিব উদ্দিন।

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বলছেন, নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে শামীম ওসমান অপরিহার্য।কারণ গোয়েন্দাদের তথ্য রয়েছে, অনেক নেতা ওয়ানম্যান শো হিসেবে নারায়ণগঞ্জে আওয়ামীলীগের রাজনীতি করেন। এবং শামীম ওসমানের বিরদ্ধে চুঙ্গা ফুঁকিয়ে মিডিয়া বন্ধব হয়েছেন। তাদের নেতৃত্বে আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক ভীত মজবুত না হলেও বিভাজন চোখে লাগার মতো। আর শামীম ওসমান হ্যামিলনের বাঁশি বাদকের মতো নেতাকর্মীদের সংগঠিত করে দীর্ঘদিন আওয়ামী লীগকে বাঁচিয়ে রেখেছেন।

সূত্র জানায়, নারায়ণগঞ্জে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের প্রভাবশালী এক ডজন নেতা ছিলেন। আর শামীম ওসমান একাই একশ। যেমন, পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক এমপি, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা কাউছার আহমেদ পলাশ, আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য আনিসুর রহমান দীপু প্রমুখ। জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল কাদির, আরজু রহমান ভূইয়াসহ বিপুল সংখ্যক মানুষ আনোয়ার হোসেনের পক্ষে নানাভাবে লবিং করেছেন। কিন্তু দিন শেষে গুরু ধরা খেলেন শিষ্যের কাছে। ২০১৬ সালে আনোয়ার হোসেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হলেও শিষ্য নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান এবং নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান মুখ্য ভূমিকা পালন করেন। কিন্তু গুরু আনোয়ার হোসেন জেলা পরিষদের চেয়ারে বসার পরও পাল্টে যেতে থাকেন। রীতিমত ইউটার্ণ নেন তিনি। বিষদাগার করেন শামীম ওসমানকে নিয়ে। যা ভালোভাবে নেননি দলের নেতারা। আনোয়ার হোসেনের ভূমিকাকে তারা অসৎ হিসেবে দেখতে শুরু করে।

অন্যদিকে চেয়ার ধরে রাখতে নাসিক মেয়র আইভীর সঙ্গে হাত মেলান আনোয়ার হোসেন। তবে, ২০১৪ সালে আনোয়ার হোসেন বিভিন্ন সভা-সমাবেশ ও বক্তৃতায় আইভীর বিরুদ্ধে তার অবস্থান বি”ষিয়ে তোলেন। ফলে নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের কাছে আনোয়ার হোসেনের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়ে। এদিকে আনোয়ার হোসেনকে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বসাতে গিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের চাপা ক্ষো”ভের শিকার হন শামীম ওসমান। তারা বারবার বলতে চেয়েছেন জেলা পরিষদে আনোয়ার হোসেনকে সমর্থন দেওয়া ঠিক নয়। কিন্তু শামীম ওসমান ও সেলিম ওসমান তাতে তোয়াক্কা না করে আনোয়ার হোসেনের পক্ষেই মাঠে নেমেছেন মন প্রান দিয়ে। সেই আনোয়ার হোসেন শামীম ওসমানকে জেলা পরিষদের দায়িত্ব দিয়ে রাজনৈতিকভাবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করেছেন। আর দলীয় নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চন্দনশীলকে মনোনয়ন দিয়ে শামীম ওসমানের নেতৃত্বকে একধাপ এগিয়ে দিয়েছেন বলে মনে করছেন দলের ত্যাগী নেতাকর্মী ও সমর্থকরা।

এদিকে নারায়ণগঞ্জে শামীম ওসমানের সমর্থক ও অনেক। তিনি একের পর এক রাজনীতিতে চমক দেখিয়ে যাচ্ছেন। তবে নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ন কাজেও শামীম ওসমানের জুড়ি মেলা ভার। এদিকে শামীম ওসমান ও মেয়র আইভী রহমানের মধ্যে ঠান্ডা দ্বন্ধ রয়েছে, যেটা মাঝে মাঝে চাঙ্গা করে তোলেন মেয়র আইভী। মাঝে মাঝে অভিযোগের আঙুল তোলেন তিনি শামীম ওসমানের দিকে।

About bisso Jit

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *