Sunday , May 26 2024
Breaking News
Home / Countrywide / এবার মামলা করা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন সেই শাওনের ভাই

এবার মামলা করা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন সেই শাওনের ভাই

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর শোভাযাত্রাকে কেন্দ্র করে পুলিশের সাথে সং/ঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দলের নেতাকর্মীরা। এই সংঘর্ষের একপর্যায়ে শাওন নামে এক যুবদল কর্মী নি/হত হয়। যদিও প্রথশে শাওনকে আওয়ামীলীগের ভাতিজা বলে দাবি করা হয় কিন্তু পরে সব কিছু যাচাই করে দেখা যায় তিনি যুবদলের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল। তার পরিবার শোক ভুলতে না ভুলতে বিভিন্ন সমস্যা জড়িয়ে যাচ্ছে বলে জানা যায়। শাওনের ভাই বললেন, আমরা মামলা করিনি এমন প্রশ্নে নিয়ে নতুন করে জটিলতার তৈরী হয়েছে।

আমার ভাই বিএনপি’র কারও আঘাতে বা গু/লিতে মারা যায় নাই। আপনারা (সাংবাদিকরা) তদন্ত করুন। আমার ভাই বিএনপি করতেন, সেদিনও বিএনপির সঙ্গে ছিলেন। তাহলে বিএনপি তাকে হ/ত্যা করবে কেন? কেন মামলা করলেন জানতে চাইলে ফরহাদ বলেন, মামলা করার প্রশ্নই আসে না। পুলিশ লা/শ হস্তান্তরের জন্য আমাদের বড় ভাই মিলন প্রধানের কাছ থেকে বেশ কিছু কাগজপত্রে স্বাক্ষর নিয়েছে। বলেছে, এই স্বাক্ষরগুলো করলে শাওনের লা/শ বুঝিয়ে দেয়া হবে। এজন্য মিলন ভাই কাগজে স্বাক্ষর করেছে। একজন শোকার্ত মানুষ কোথায় এবং কেন স্বাক্ষর করছেন তা জানার কথা নয়। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টায় পুলিশ লা/শ বুঝিয়ে দেয়। রাত ১টায় লাশ বাড়িতে এনে গোসল করিয়ে জানাজা শেষে রাত ২টায় লা/শ দাফন করি।

তাহলে আমরা মামলা করলাম কোথায়- পাল্টা প্রশ্ন ফরহাদের। ফরহাদের স্পষ্ট কথা, আমরা কোনো মামলা করিনি। শনিবার সকালে সরজমিন নি/হত যুবদল কর্মী রাজা আহমেদ শাওনদের বাড়িতে তার মেজ ভাই ফরহাদের সঙ্গে কথা হলে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় দেখা যায় শাওনের মা ফরিদা বেগম এখনো কেঁদেই চলছেন।

কাঁদতে কাঁদতে বলে, আমার ছেলের হ/ত্যার বিচার চাই। নিহত শাওনের ভগ্নিপতি আফজাল হোসেন বলেন, আমরা চেয়েছিলাম পরদিন অর্থাৎ শুক্রবার সকালে স্থানীয় স্কুলের মাঠে জানাজা শেষে লা/শ দাফন করতে। গভীর রাতে দাফন করতে বাধ্য করা হয়।নিহ/তের চাচা মোক্তার হোসেন জানান, শাওন যুবদলের রাজনীতির সাথে জড়িত বলে তার পরিবার জানত না, তবে তার ফেসবুক পেজ দেখে সবাই তা ভালো করেই বুঝতে পেরেছে।এখন আর টানাটানি না করাই ভালো। এখন মৃত শাওন বিএনপি’র নাকি আওয়ামী লীগের সেটা নিয়ে রশি টানাটানি না করাই ভালো।তিনি বলেন, শাওনের মৃ/ত্যুর পরদিন বিএনপির বড় বড় নেতারা তার বাড়িতে এসে সমবেদনা জানিয়েছিলেন।আওয়ামী লীগের কেউ আসেনি।মৃ/ত্যুর প্রথম রাতে, তার চাচা ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বক্তাবলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত আলী এসেছেন। তিনিও জানাজায় ছিলেন।আত্মীয় হিসেবে এসেছেন।তিনি ছাড়া কেউ আসেননি।মৃ/ত্যু শাওনের ভাই কোনো মামলা করেননি। এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে সুপার পুলিশের সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল ফোন ধরেননি। তবে এ প্রসঙ্গে তিনি ইলেকট্রনিক মিডিয়ার আরেক সাংবাদিককে বলেন, তারা মামলা না করলে মামলা হয় কীভাবে? পুলিশের সিসিটিভি ফুটেজে পুরোটাই আছে। সেদিন নিহতের ভাইয়ের সঙ্গে আরও অনেকে ছিলেন। তারা স্বেচ্ছায় মামলা করেছেন বলে পুলিশ সুপার দাবি করেন।

প্রসঙ্গত, শাওনের ঘটনায় কোনো ধরনের মামলা দেওয়া হয়নি পরিবার দাবি করলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে ভিন্ন কথা বলা হচ্ছে। বিষয়টি ভিন্নখাতে নেওয়ার জন্য এমন ঘটনার সৃষ্টি করা হচ্ছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

About Babu

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *