Wednesday , May 29 2024
Breaking News
Home / Countrywide / সহকর্মীরা আমাকে জিজ্ঞেস না করে আন্দাজে কথা বলে, আজকে বলে, ভাই, আমি স্যরি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সহকর্মীরা আমাকে জিজ্ঞেস না করে আন্দাজে কথা বলে, আজকে বলে, ভাই, আমি স্যরি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সাম্প্রতিক সময়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এক বক্তব্যে নিয়ে শুরু হয় আলোচনা-সমালোচনা। এরপর থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন অনেকটাই কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন দলের ভেতর এবং বাইরে থেকেও। তবে তিনি এ বিষয়ে তুলে ধরে বলেছেন যে, যেটা বলা হচ্ছে সেটা একদমই কিছু নয়। তবে তার এ ধরনের বক্তব্যের প্রেক্ষিতে অনেকটা বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন নেতারা। এবার তিনি এ বিষয়ে সহকর্মীদের সাথে আলোচনার বিষয়টি তুলে ধরেছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেন, আমার সহকর্মীরা আমাকে জিজ্ঞেস না করেই আন্দাজে কথা বলে। আজ বলছে, ভাই, আমি দুঃখিত, আপনার সাথে আমার কথা বলা উচিত ছিল। আমি বললাম, বলেননি কেন? বলে, আপনি আমাদের জানাননি কেন। আমি বললাম, ওকে। বললেন, আমাদের জানান, তাহলে আমাদেরও সুবিধা হবে। চিলে কান নিয়ে গেছে, কান ধরেও দেখে না আসলে কি জিনিস।

তিনি আরও বলেন, আমাকে সবাই বলে, কিছু বইলেন না। আমাদের সাধারণ সম্পাদক পরামর্শ দেন, আপনি কথা বইলেন না। তখন আমার চারপাশের সবাই বলছে, কিছু বলবেন না। এটা কী শুরু করেছেন উনারা। কথা বলতে তারা দেবে না আমাকে, এটা কী তাজ্জবের বিষয়। আজকে আবার আমাকে অভিযোগ করলেন আমার দুই কলিগ। বললেন, আপনি আমাদের বললেন না। বললাম, আমি বলার আগেই তো আপনারা বলে ফেলেছেন। আমাকে তো আপনারা জিজ্ঞেসও করেন নাই। বলল, আমরা স্যরি। আপনি একটু আমাদের লিখে দেন কী ঘটনা হয়েছিল।

গতকাল দেশের একটি অনলাইন সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। ১৮ আগস্ট চট্টগ্রামে জন্মাষ্টমী অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের বক্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়। খোদ ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও মন্ত্রিসভার সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। এ সময় তাকে ঘরে-বাইরে কোণঠাসা করে রাখা হয়। ঘটনার পর এই প্রথম মিডিয়ার মুখোমুখি হলেন তিনি।

ভারতের ইস্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, আমি বললাম, এটা জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠান। আমরা সেখানে সম্প্রীতির কথা বলছি। কোনো নির্বাচন নিয়ে নয়, ভারতেও কোনো নির্বাচন নিয়ে কোনো কথা হয়নি। সন্ত্রা”স ও উ”গ্রবাদ না থাকলে উন্নয়ন হবে কী করে? আমি সেখানে আসামের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে প্রথম আলোচনা শুরু করেছি। যেটা আপনাদেরই মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন। আপনার দেশে কিছু মৌলবাদী মানুষ আছে, খারাপ লোক আছে, আমার দেশেও আছে। আমরা যদি এই বিষয়ে একমত হই, এগুলো আমরা ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে কখনো বলব না, নিরুৎসাহিত করব। তাহলে স্থিতিশীলতা থাকবে, সম্প্রীতি থাকবে। আর শেখ হাসিনা সম্প্রীতি, স্থিতিশীলতার প্রতীক। আমরা যেভাবে পারি তাকে সাহায্য করব।

আমি ভারতে গিয়ে বলিনি শেখ হাসিনার সরকার টিকিয়ে রাখতে হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল মোমেন বলেছেন, শেখ হাসিনার সরকার টিকিয়ে রাখতে হবে- আমি ভারতে গিয়ে এ ধরনের কথা বলিনি, এটা একটা বড় মিথ্যাচার। নির্বাচন নিয়েও কোনো কথা বলিনি। গ্লোবাল কনটেক্সটে যে অস্থিতিশীলতা হচ্ছে তা নিয়ে কথা বলেছি।” গতকাল সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

চট্টগ্রামে জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠানে যোগদান করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন ভারতকে শেখ হাসিনাকে পূনরায় ক্ষমতায় রাখার অনুরোধ করেছেন, এমন বক্তব্যে আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যে সমালোচনার পাত্র হয়েছেন তিনি। তবে সমালোচনার প্রেক্ষিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমার বক্তব্য নিয়ে যে অভিযোগ তোলা হয়েছে, সেটা পুরোপুরি ভুল, আমি এ প্রসংগে কোনো কথা বলিনি। ভারতে গিয়েও ইলেকশন প্রসঙ্গে কোনো কথা বলিনি।

About bisso Jit

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *