Tuesday , May 21 2024
Breaking News
Home / Countrywide / এবার দলটির সম্পূর্ণ দ্বায়িত্ব নিতে চলেছে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন

এবার দলটির সম্পূর্ণ দ্বায়িত্ব নিতে চলেছে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন

তারেক জিয়া বিদেশে অন্যদিকে খালেদা জিয়া অসুস্থ, এছাড়া বেগম জিয়া একাধিক মামলার আসামী হয়ে কারাবাস জীবন জাপন করছেন। এসব কথা বিবেচনা করলে মাথায় আসে এমতাবস্থায় দলটির দ্বায়িত্ব কে নেবে? এমন প্রশ্নের উত্তর মিললো বাংলাদেশের এক জনপিয় সংবাদ মাধ্যম থেকে।
সংবাদ মাধ্যমটি জানিয়েছে, বিএনপিতে একক আধিপত্য প্রতিষ্ঠা নিয়ে প্রধান নেতাদের মধ্যে কোন্দল বাড়ছে। দলের সভানেত্রী খালেদা জিয়ার কারাবরণ এবং বর্তমান সভাপতি তারেক রহমানের দীর্ঘ নির্বাসনের কারণে দুটি গ্রুপ সক্রিয়ভাবে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করছে। এই অস্থিতিশীলতা দূর করার দায়িত্ব নিতে চান ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।
বিএনপি সূত্র বলছে, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের পর খন্দকার মোশাররফ হোসেনের অবস্থান। দলের একাধিক নেতাও তার পাশে রয়েছেন।

সম্প্রতি কুমিল্লা উত্তরের সভাপতি প্রকৌশলী মঞ্জুরুল আহসান মুন্সী খন্দকার তারিক রহমানের সঙ্গে স্কাইপে আলাপচারিতায় মোশাররফকে বিএনপির দায়িত্ব দেওয়ার প্রস্তাব করেন। তিনি তারেক রহমানকে বলেন, অন্তর্বর্তীকালীন রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব দিতে হবে।

সভায় ড. মোশাররফের সমর্থকরা এই প্রস্তাবকে সমর্থন করেন। এসময় কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খান উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে মির্জা ফখরুলের ঘনিষ্ঠ এক নেতা বলেন, দলটি যৌথ নেতৃত্বে কাজ করে। টিম ম্যানেজমেন্ট এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণে সিনিয়র নেতারা মিলিত হন এবং একসাথে সিদ্ধান্ত নেন। সেখানে ড. মোশাররফ হোসেনকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নিয়োগের প্রস্তাব ইচ্ছাকৃত এবং গভীর ষড়যন্ত্রমূলক।

কুমিল্লা বিএনপির এক নেতা জানান, আগের দিন রাতে তারেক রহমানের সঙ্গে স্কাইপে বসেছিলেন তিনি। মোশাররফের বাসায় তার উপস্থিতিতে এ প্রস্তাব দেওয়া হয়। কুমিল্লার শীর্ষস্থানীয় নেতারা ছাড়াও তারিক রহমানের স্কাইপে বৈঠকে ড. মোশাররফের অনুগতদের আনা হয়েছিল।

মঞ্জুরুল আহসান মুন্সী তারিক রহমানকে বলেন, আপনি বিদেশে আছেন, ম্যাডাম জেলে। এ অবস্থায় খন্দকার মোশাররফকে সিনিয়র হিসেবে দলের দায়িত্ব নিতে হবে।

অন্যদিকে মির্জা ফখরুল বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সভাপতিত্ব করছেন, যা ড. মোশাররফ ও তার দলের নেতারা চান না। ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি বেগম খালেদা জিয়া কারাবন্দি হওয়ার পর গত ১০ ফেব্রুয়ারি রাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা বৈঠক করেন।

খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় ড. ওই বৈঠকের পর দলের কয়েকজন সিনিয়র নেতার অসন্তোষের কারণে মোশাররফের জায়গায় মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্ব করছেন ড. গত নির্বাচনে কুমিল্লার দুটি আসন থেকে একক সিদ্ধান্তে নির্বাচিত হন তিনি। এম কে আনোয়ারের বড় ছেলে মাহমুদ আনোয়ার সেখানে বেশ জনপ্রিয় হলেও জোর করে মনোনয়ন পান।

দলের জ্যেষ্ঠ এক নেতার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, খন্দকার মোশাররফ হোসেনের কর্মকাণ্ড ও আচরণ নিয়ে দলের কেউ কেউ সন্দেহ প্রকাশ করেন ড. তিনি প্রকাশ্যে ও গোপনে দলের বিরুদ্ধে ম্যাচ থেকে ম্যাচ করে যাচ্ছেন। শাসকদের সঙ্গে তার যোগসাজশ থাকতে পারে বলেও সন্দেহ করা হচ্ছে। দুদক তার মামলার ব্যাপারে একেবারেই নীরব। দলীয় কোনো অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানিয়ে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে পাওয়া যায়নি।

গত জানুয়ারিতে জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সুপ্রিম কোর্টের বার অ্যাসোসিয়েশনের অ্যাসেম্বলি হলে আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি দল পুনর্গঠনের জন্য একটি কাউন্সিল আহ্বান করেন এবং দিক পরিবর্তনের প্রস্তাব করেন। কিন্তু দলের হাইকমান্ড তা আমলে নেয়নি। তিনি অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি বা সাধারণ সম্পাদক হতে চান।

মোশাররফের ঘনিষ্ঠ একজন নেতা বলেছেন, তিনি সংঘাত এড়াতে চান না। কিন্তু মির্জা ফখরুল ডঃ মোশাররফ সাহেবকে কোণঠাসা করতে চান। সবচেয়ে পুরনো হয়েও নেতার দাবি। মোশাররফকে স্থায়ী কমিটির সভাপতি হতে দেবেন না। কিন্তু তিনি ক্ষোভে বিএনপি ছাড়বেন বা ক্ষমতাসীন দলের সঙ্গে সমঝোতা করবেন এমন গুজব স্রেফ অপপ্রচার।
উল্লেখ্য, বর্তমানে দলটির চেয়ারপার্শন বেগম জিয়া অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে অবস্থার করছেন। তার অবস্থা দিন দিন খারাপের দিকে। অন্যদিকে দেশে ফিরতে পারছেনা তারক রহমান। যার জন্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে দলটির ভার তুলে নতে পরাপমর্শ দিয়েছেন অনেক রাজনৈতিক নেতারা। তবে এই বিষয়ে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন সংবাদ মাধ্যমে নিজের মন্তব্য প্রকাশ করেনি।

About Nasimul Islam

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *