Saturday , May 25 2024
Breaking News
Home / Countrywide / এবার রাজনীতির মাঠে ফাইনালি নামার সময় বেঁধে দিল তথ্যমন্ত্রী

এবার রাজনীতির মাঠে ফাইনালি নামার সময় বেঁধে দিল তথ্যমন্ত্রী

আওয়ামীলীগ এদেশের মানুষের ভোটে নির্বাচিত হয়েছে ক্ষমতায় এসেছে। আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আওয়ামীলীগের জন্ম। এ দেশের খেটে খাওয়া মানুষের দল হচ্ছে বাংলাদেশে আওয়ামীলীগ বলে মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে আওয়ামীলীগ সরকার। কোনো বিদেশী প্রভু দিয়ে আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় টিকে নেই জনমানুষের শক্তি দিয়েই ক্ষমতায় আছে। রিহার্সেল দিয়েছি, ফাইনালি নামব আগামী মাসে বলে মন্তব্য এ প্রসঙ্গে যা বলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আওয়ামী লীগ কোন বিদেশি শক্তির শক্তিতে বলীয়ান নয়, আমরা বাংলাদেশের জনগণের শক্তিতে বলীয়ান। সমস্ত বৈদেশিক রাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের সুসম্পর্ক। ভারত আমাদের অকৃত্রিম বন্ধু।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ এদেশে গণতান্ত্রিক অসাম্প্রদায়িক শক্তির নেতৃত্ব দিচ্ছে। সুতরাং যারা অগণতান্ত্রিকভাবে ব/ন্দুকের নল থেকে বেরিয়ে এসে সাম্প্রদায়িক রাজনীতির চর্চা করে তাদের সাথে একটি গণতান্ত্রিক অসাম্প্রদায়িক বিশ্ব থাকতে পারে না।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ‘বঙ্গবন্ধু হ/ত্যাকান্ড : পঁচাত্তর পরবর্তী বাংলাদেশের রাজনীতি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বিদেশি শক্তির হাতে আওয়ামী লীগ টিকে আছে কিনা তা নিয়ে বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভীর বক্তব্যের প্রসঙ্গে হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগের শক্তি জনগণ, জনগণের শক্তিতে আমরা বলীয়ান। ১৭ আগস্ট আমরা বিএনপির উদ্যোগে সারাদেশে পাঁচশত স্থানে বো/মা হামলার প্রতিবাদে দেশব্যাপী প্রতিবাদ মিছিলের ডাক দিয়েছিলাম। এটা ছিল ট্রায়াল মাত্র। কিন্তু গতকাল মির্জা ফখরুল সাহেব যে প্রেস কনফারেন্স করেছেন তাতে আমার মনে হয় তারা ট্রায়াল দেখে ভয় পেয়েছে। আমরা মাত্র রিহার্সেল দিয়েছি, ফাইনালি নামব আগামী মাসে, তখন তারা পালানোর পথ খুঁজে পাবেনা।

১৫ আগস্টের কথা স্মরণ করে মন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ইমাম হোসেনকে কারবালার প্রান্তরে জবাই করা হয়েছিল। কিন্তু কারবালার প্রান্তরে নারী ও শিশুদের হ/ত্যা করা হয়নি, তাদের সবাইকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।অথচ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নারী এবং শি/শুদের হ/ত্যা করা হয়েছে। নিহত হন ১০ বছরের শিশু শেখ রাসেল, চার বছরের সুকান্ত বাবু, ১১ বছরের শি/শু সেরনিয়াবাত। অন্তঃসত্ত্বা বেগম আরজু মনিকে হ/ত্যা করা হয়েছে। সেদিন সত্যিই মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত হয়েছিল। এই হ/ত্যাকাণ্ডের বড় সুবিধাভোগী জিয়াউর রহমান ও তার পরিবারসহ পর্দার আড়ালে থাকা সকল অপরাধীদের ফাঁস ও বিচার করে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে সঠিক ইতিহাস জানানো আমাদের দায়িত্ব।

চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক এম এ সালামের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ পালিতের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আতাউর রহমান, সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মোহাম্মদ মঈনুদ্দিন, আবুল কালাম।

প্রসঙ্গত, বিএনপি সকল ষড়যন্ত্রের সাথে জড়িত ছিল বিলে মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, আন্দোলনের ভয় আওয়ামীলীগ দেখিয়ে লাভ নেই কারন আওয়ামীলীগ এদেশের জনগনের দল।

.

About Babu

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *