Wednesday , February 21 2024
Breaking News
Home / Countrywide / শেখ হাসিনা বললেও শুনবোনা, আমার বাহিনী দিয়ে ওদের গর্ত থেকে টেনে বের করা হবে: শামীম ওসমান

শেখ হাসিনা বললেও শুনবোনা, আমার বাহিনী দিয়ে ওদের গর্ত থেকে টেনে বের করা হবে: শামীম ওসমান

বিদেশে বসে বাংলাদেশের অরাজগতা সৃষ্টি করছে তারেক রহমান এমনই ধারণা করছেন আওয়ামী লীগের বেশ কিছু নেতাবৃন্দরা।  বাংলাদেশ  সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া  অগ্নিকাণ্ড দাঙ্গা-হাঙ্গামা,  আন্দোলন কর্মসূচি ইত্যাদির জন্য তারেক রহমানকে দায়ী করেছেন আওয়ামী লীগের নেতারা।  এ বিষয় নিয়ে এবার বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সমালোচনা করে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছেন, মায়ের প্রতি যার সহানুভূতি নেই, সে দেশের প্রতি সহানুভূতি কেন? সাহস থাকলে লন্ডন থেকে দেশের নেত্রীর কাছে আসতে বলুন ।

সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত শোক দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শামীম ওসমান বলেন, লন্ডনে নেত্রীর কথায় নারায়ণগঞ্জের অনেকেই নাচছেন। যারা নাচুইন্না বুড়ি তাদের বলি, নাইচা গর্তে ঢুকলে আমাদের বিচ্ছু বাহিনী হাত দিয়ে বের করে আনবে। একই জিনিস বারবার ঘটবে না। এবার মানুষ আগুনে পুড়ে মরবে, তা আর হবে না। এবারও আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা শান্ত হতে বললেও তা হবে না। এবার কেউ কারো কথা শুনবে না।

তিনি বলেন, নেত্রী লন্ডনে বসে হুকুম দেন আর আপনারা নাচবেন, এটা হবে না। তার কিছুই হবে না। আপনি উন্মুক্ত করা হবে. সাহস থাকলে নেত্রীকে লন্ডন থেকে দেশে আসতে বলুন। নিজের মা মারা যায়; তোমার জন্য কোন দুঃখ আসবে না; যে মায়ের জন্য দুঃখ পায় না, সে কেন নিজের দেশের জন্য দুঃখ পায়।

তিনি আরও বলেন, ছেলের বউ এত বড় ডাক্তার যে মা অসুস্থ চিকিৎসার জন্য আসেন না। আচ্ছা, বুঝলাম স্ত্রী বোধহয় তার স্বামীকে ভালোবাসে না। আচ্ছা, নাতনি আছে। তিনি আসতে পারতেন। তিনিও আসেননি। খালেদা জিয়ার প্রতি আমার দারুণ স্নেহবোধ। এটা খুবই কঠিন. তাই আমি বলি তার কথায় নাচ করে অনেকের লাভ হবে না।

শামীম ওসমান বলেন, যে দলই হোক না কেন সমাজের ভালো মানুষদের নিয়ে কাজ করতে চাই। আমাদের হাইব্রিডের দরকার নেই। হাইব্রিড থাইকেনের পিছনে। যে নামাজ পড়বে সে ইমামের পিছনে দাঁড়াবে। ইমামের সামনে গেলে নামাজ পড়বে না। নেতা হও, মন্ত্রী হও, মেয়র হও, আপত্তি নেই, ইমামের পিছনে থাকো।

সারা বাংলাদেশে দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধি বিদ্যুৎ সংকট ও জ্বালানি সংকট নিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।  এগুলোর জন্য বর্তমান সরকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দায়ী করছেন বিরোধী দলের নেতারা।  তাদের দাবি সরকারের দুর্নীতির কারণেই বাংলাদেশ দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে বেড়ে গেছে জ্বালানি তেলের দাম অন্যদিকে  বিদ্যুৎ ঘাড়তির জন্য শুরু হয়েছে অসহনীয় লোডশেডিং।

About Nasimul Islam

Check Also

শিশুবক্তা মাদানীকে কেন্দ্র করে ফের পুলিশের সঙ্গে ব্যাপক সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত অনেক

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে সুপরিচিত শিশু বক্তা মুফতি রফিকুল ইসলাম মাদানীকে তাফসীরুল কুরআন মাহফিলের মঞ্চে প্রবেশে বাধা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *