Wednesday , February 21 2024
Breaking News
Home / Countrywide / বাড়িতে থাকতে পারেননি, এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়িয়েছেন, জানা গেল কাকে বললেন এই কথা তোফায়েল আহমেদ

বাড়িতে থাকতে পারেননি, এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়িয়েছেন, জানা গেল কাকে বললেন এই কথা তোফায়েল আহমেদ

তোফায়েল আহমেদ হলেন বাংলাদেশের বর্তমান ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের একজন প্রখ্যাত রাজনীতিবীদ এবং শীর্ষস্থানীয় নেতা। তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী সরকারের শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তোফায়েল আহমেদ বেশ কয়েকবার জাতীয় সংসদের মাননীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সম্প্রতি তিনি তার এক বক্তব্যে বলেছেন আ.লীগকে ক্ষমতা থেকে বিদায় করা এত সহজ নয়।

আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে বিদায় করা এত সহজ নয় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

ভোলা জেলা মিলনায়তনে মঙ্গলবার সকালে তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তোফায়েল বলেন, ‘বিএনপি কথায় কথায় বলে আওয়ামী লীগের পায়ের নিচে মাটি নেই। অথচ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিবৃতি দিয়েই তার দলকে টিকিয়ে রেখেছেন।

‘প্রেস রিলিজ আর সংবাদমাধ্যম ছাড়া তাদের আর কোনো কাজ নেই। মির্জা ফখরুল লেখক স্বাধীনতার সময় বিদায় নেবে। এত সহজ লিঙ্গ ক্ষমতা থেকে বিদায় করা নয়। বিএনপি ৯৬ তারিখে ১৫ মার্চ নির্বাচন শুরু, আন্দোলনের ৩১ মার্চ সক্রিয়তা কার্যকর করা হয়েছে। আপনি সেই দল।

প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগ ১৪ বছর ক্ষমতায় থাকলেও বিএনপির ওপর কোনো অত্যাচার-নির্যাতন করেনি। অথচ বিএনপি ২০০১ সালে ক্ষমতায় থাকাকালে আওয়ামী লীগের কর্মীরা বাড়িতে থাকতে পারেননি। এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়িয়েছেন।

‘বিএনপি যখন সুযোগ পায় তখন মানুষের ওপর অ/ত্যাচার করে। ভোলায় সমাবেশের ওপর তাণ্ডব চালিয়েছে বিএনপি, ১৪ বছরের ওপর এমন কর্মসূচি শুরু হয়েছে। আগামী নির্বাচনের দলসংগঠনকে ঐক্য গঠন করতে হবে। ঐক্যবদ্ধ ঐক্য জোটকে কেউ করতে না পারে। বিএনপি অ্যাচার শুরু করতে পাল্টা পছন্দ দিতে হবে।

মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি দোস্ত মাহামুদ।

বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আজিজুল ইসলাম, ভোলা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজিবুল্লাহ নাজু, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলী নেওয়াজ পলাশ, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আতিকুর রহমান।

প্রসঙ্গত, তোফায়েল আহমেদ শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রীর পদে আসীন হবার পর সততা ও ন ইষ্ঠার সহিত তার দায়িত্ব পালন করে গিয়েছিলেন। তার সময়ে শিল্প ও বাণিজ্যক্ষেত্রে অনেক উন্নয়ন সাধিত হয়েছিল। আওয়ামী লীগের একজন প্রবীণ নেতা হিসেবে দলের প্রতি তার রয়েছে অপরিসীম অবদান।

About Shafique Hasan

Check Also

শিশুবক্তা মাদানীকে কেন্দ্র করে ফের পুলিশের সঙ্গে ব্যাপক সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত অনেক

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে সুপরিচিত শিশু বক্তা মুফতি রফিকুল ইসলাম মাদানীকে তাফসীরুল কুরআন মাহফিলের মঞ্চে প্রবেশে বাধা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *