Sunday , March 3 2024
Home / Sports / সাকিব এবার যে কাজ করেছে তাতে কোনো ভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না: পাপন

সাকিব এবার যে কাজ করেছে তাতে কোনো ভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না: পাপন

সম্প্রতি সাকিবকে নিয়ে গণমাধ্যমে তুমুল সমালোচনার ঝড় উঠেছে। এরইমধ্যে সাকিবের এই বিষয়টি নিয়ে বিসিবি বোর্ডে অনেকবার মিটিং হয়েছে।  সকল বিষয়ে পর্যবেক্ষণ করে বিশেষ এক সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর কথা জানিয়েছেন বিসিবির।  এসকল বিষয় নিয়ে সাকিবকে সতর্ক করলেও এখনো তার সিদ্ধান্তের কথা জানায়নি বলেও অভিযোগ করেছেন বিসিবি।

ক্রীড়াবিষয়ক ওয়েবসাইট ‘বেট উইনার’ নিউজে যোগ দিয়েছেন দেশের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তিনি নিজেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আর তাতেই বিপাকে পড়েন তিনি। দেশজুড়ে বইছে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। নড়েচড়ে বসেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)ও। এরই মধ্যে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানিয়েছেন, বাংলাদেশের বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তিনি বলেন, শাকিবকে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। তবে সমঝোতার মাধ্যমে বিষয়টি সমাধান করতে চান তারা। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল এশিয়া কাপ খেলতে যাওয়ার আগেই এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

জালাল ইউনুস বলেন, ‘একটি সমস্যা হয়েছে এবং আমরা তার (সাকিব) সঙ্গে যোগাযোগ করছি। তার সাথে একবার কথা হয়েছে। আমরা এই সমস্যা সমাধান করা প্রয়োজন. বিষয়টি সমাধানের জন্য আমরা তার সঙ্গে কথা বলছি। দু-একদিনের মধ্যেই জানা যাবে।

বিসিবি গতকালও জানিয়েছে, জুয়া বা বাজি খেলার সঙ্গে জড়িত থাকবেন না ক্রিকেটাররা। বিসিবির জিরো টলারেন্স নীতি প্রকাশ করা হবে বলেও জানান জালাল ইউনুস। বিসিবির ক্রিকেট ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রধান বলেছেন, ‘আমরা এই ধরনের বাজির ব্যাপারে জিরো টলারেন্স দেখাই। এখানে তার সম্পৃক্ততা দেখা যায়, এরকম একটি কোম্পানির সাথে তার চুক্তি রয়েছে। আমরা তাকে জানিয়েছি, তিনি সমস্যাটি সম্পর্কে অবগত এবং আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটি সমাধান করার চেষ্টা করছি।’ কিন্তু অনেকেই হয়তো সাকিবের পক্ষে যুক্তি দিতে পারেন যে এটি ব্যাটিং সাইটগুলোর জন্য একটি নিউজ পোর্টাল। তবে জুয়া সংক্রান্ত কোনো কিছুতেই ছাড় দেবে না বিসিবি। ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির চেয়ারপারসন বলেন, “আমরা তাকে জানিয়েছি যে আমরা এটা মানি না। সে আমাদের খেলোয়াড় এবং সে বুঝবে। এবং কেউ বিতর্কিত কোথাও জড়াতে চায় না। জেনে-অজান্তে বা ভুলবশত আমরা তাকে বলেছি। সমাধানের চেষ্টা করছি।আশা করি দ্রুত সমাধান হবে।

অন্যদিকে প্রশ্ন উঠেছে বিসিবির চাপে সাকিব যদি এই সাইটের সঙ্গে বিজ্ঞাপনের চুক্তি ভঙ্গ করেন তাহলে তার অনেক টাকা লোকসান হবে। সেক্ষেত্রে তাকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে! এ প্রসঙ্গে বিসিবি বলেছে, ক্ষতিপূরণের কোনো সুযোগ নেই। জালাল ইউনূস বলেন, আমরা এমনটি ভাবিনি এবং সাকিবও এ বিষয়ে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেননি। আগে সমস্যার সমাধান করি তারপর দেখা যাক।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) আসন্ন মৌসুমের জন্য ফ্র্যাঞ্চাইজিদের জন্য বিজ্ঞাপন দিয়েছে বিসিবি। বিজ্ঞাপনে স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে যে কোনো বাজি বা জুয়া প্রতিষ্ঠানই ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিক হবে না। কাকতালীয়ভাবে বিসিবির কঠোর নির্দেশের দিনেই বেট উইনার নিউজে যোগ দেন সাকিব আল হাসান। তিনি বেট উইনার নিউজের একটি গুডউইল অ্যাম্বাসাডর হিসেবে স্বাক্ষর করেছেন, বেট উইনারের একটি সহযোগী প্রতিষ্ঠান। আর এরপর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে শুরু করে সব মহলেই সমালোচিত হচ্ছেন সাকিব। এর আগে সাকিব সম্পর্কে বলতে গিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, এ ব্যাপারে অনুমতি দেওয়ার প্রশ্নই আসে না। এবং তিনিও আমাদের কাছ থেকে কোনো অনুমতি নেননি। তবে মূল বিষয়টি আগে জানতে হবে তিনি আসলে চুক্তি করেছেন কি না।

সাকিব আল হাসান এশিয়া কাপে বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক হতে যাচ্ছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। আর এ কারণে তিনি কোনোভাবেই জুয়া সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত থাকতে চান না। আর তা হলে অধিনায়ককে নিয়ে আরও একবার ভাবতে হবে বিসিবিকে। 2020 সালে, জুয়াড়িদের সাথে হোয়াটসঅ্যাপ যোগাযোগের প্রমাণ উদ্ধৃত করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) সাকিবকে এক বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করেছিল। এতে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়।

উল্লেখ্য, এই ঘটনা অনেক পাঠক তাদের মন্তব্য গন মাধ্যমে তুলে ধরে বলেছেন, তাকে (সাকিব) অবিলম্বে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে সাসপেন্ড করা উচিত। বিসিবির অপেক্ষা করার কোনো মানে নেই কারণ সাকিব একটি বেটিং এজেন্সির সঙ্গে তার সম্পৃক্ততার বিষয়টি গণমাধ্যমে নিশ্চিত করেছেন। তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে বিসিবিকে কেন তার সঙ্গে আলোচনা করতে হবে? বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়দের সাকিবের সাথে না খেলার জন্য কঠোর অবস্থান নিতে হবে যদি সে দেশের ক্রিকেট বৃত্তের আশেপাশে থাকে।

 

শৃঙ্খলা। দয়া করে থামুন। আপনাদের শৃঙ্খলা ও কর্মকাণ্ড এখন আমাদের ক্রিকেটের ক্ষতি করছে। আমরা জিম্বাবুয়ের কাছে হেরেছি এবং যদি আপনি না থামেন, আমরা নেপাল, বারমুডা, সংযুক্ত আরব আমিরাত, পাপুয়া নিউ গিনি ইত্যাদির বিপক্ষে হারতে যাচ্ছি। সম্ভবত, এটিই সঠিক সময় নিজেদের শৃঙ্খলাবদ্ধ করার, আমি বলতে চাচ্ছি পুরো বিসিবি সভাপতি, পরিচালক, কোচিং স্টাফ। লজ্জা করে না আপনার.

 

About Nasimul Islam

Check Also

এবার শিরোপা জয়ে আবেগঘন স্ট্যাটাস তামিমপত্নীর

বিপিএল শুরুর আগে তামিম ইকবাল তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকাকে বলেছিলেন ফরচুন বরিশাল ফাইনাল খেলবে। স্ত্রীকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *