Wednesday , February 28 2024
Breaking News
Home / Entertainment / একটা ফোনের অপেক্ষায় ছিলাম চারটা বছর, অবশেষে এলো সেই কাঙ্খিত ফোন: আসিফ

একটা ফোনের অপেক্ষায় ছিলাম চারটা বছর, অবশেষে এলো সেই কাঙ্খিত ফোন: আসিফ

বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পি আসিফ আকবর।ক্যরিয়ারে অসংখ্য গানে কন্ঠ মিলিয়েছেন তিনি এবং সেই সাথে দেখা গিয়েছে তার গাওয়া গানগুলো মানুষ ব্যপকভাবে পছন্দ করেছে। যদিও এখন আসিফ তেমন নিয়মিত গানে নেই তবু তার ভক্তরা অপেক্ষায় থাকেন প্রিয় শিল্পির, কবে তিনি আবারো নতুন গান নিয়ে হাজির হবেন।

আসিফ আকবর ও সঙ্গীত শিল্পী ন্যান্সি প্রায় চার বছর ধরে কথা বলেনি। দুজনের মধ্যে একটা গর্ববোধ ছিল। কিন্তু চার বছরের অভিমান গলে গেছে। আসিফ আকবরের অপেক্ষার পালা শেষ। ন্যান্সির ফোন পেয়েছি। তার মুখে মধুর কন্ঠে ভাইয়ের ডাক শুনলাম। শনিবার (৩০ জুলাই) আসিফ নিজেই তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এ বিষয়ে একটি পোস্ট দেন।

একটি রেস্তোরাঁয় ন্যান্সির সঙ্গে বসে থাকা নিজের একটি ছবি পোস্ট করে আসিফ ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘চার বছর ধরে ফোনের অপেক্ষায় আছি। অবশেষে কাঙ্খিত ফোন এল। হ্যালো বলার সাথে সাথে আমি আমার প্রিয় কন্ঠ শুনতে পেলাম। ভাই আমি ন্যান্সি… তার কল পেয়ে ভালো লাগছে। আমার বিরুদ্ধে বিশ্বের সমস্ত অভিযোগ শুনতে ভাল লাগল। ন্যান্সি আমার থেকে বয়সে ছোট, আমি বড়, তাই আমার ন্যূনতম ভুলের সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়া উচিত।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘নাজমুন মুনিরা ন্যান্সির কণ্ঠ আমাদের সম্পদ। তিনি আমাকে বললেন, ভাই আমি আমার রাগ কমিয়েছি, আপনিও রাগ কমিয়ে দিন। আমি সাথে সাথে রাজি হয়ে গেলাম। অনেকদিন পর স্নেহার ন্যান্সির সাথে গল্প-গানের আড্ডায় নিজেকে হালকা করলাম।

পরে আসিফ ন্যান্সির মঙ্গল কামনা করে লেখেন, ‘ভালো থেকো ন্যান্সি, সুখে থাকো। গাও, তোমার কণ্ঠ এদেশের মানুষের আনন্দ, আমি সেই দলের বাইরে নই।
ভালোবাসা অফুরন্ত…’

এরপর ছবি তোলার জন্য ফারহানা নিশোকে ধন্যবাদ জানান আসিফ

প্রসঙ্গত, বর্তমান সময়ের আলোচিত কন্ঠশিল্পিদের তালিকায় আছেন ন্যন্সি, তার সুরেলা কন্ঠের জাদুতে তিনি মানুষের মনে ঠাই পেয়েছেন বাংলা সিনেমার প্লেব্যকে তার গানগুলো বেশ আলোচনা তৈরি করেছে এবং সেই সাথে তার একক এলব্যমগুলো বেশ সাড়া জাগিয়েছে।

About Rasel Khalifa

Check Also

হঠাৎ প্রাণ হারলেন ৪ তারকা

বিনোদন জগতে একের পর এক দুঃসংবাদ। গজল সম্রাট পঙ্কজ উদাসের মৃ/ত্যুর রেশ কাটতেন না কাটতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *