Monday , March 4 2024
Breaking News
Home / Countrywide / প্রধানমন্ত্রী এখন বিএনপির কর্মসূচি নির্ধারণ করতে চান : দুদু

প্রধানমন্ত্রী এখন বিএনপির কর্মসূচি নির্ধারণ করতে চান : দুদু

সরকার দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংস করে দেশের জনগনের ভোটাধীকার কেড়ে নিয়েছে। যার কারনে দেশে কোনো গনতন্ত্র নেই একনাকয়তন্ত্র শাসন চলচ্ছে। ক্ষমতা দীর্ঘ স্থায়ীর করার স্বার্থে সরকার এমন কাজ করেছে। বিগত নির্বাচনের মতই আবারও বিনা ভোটে ক্ষমতায় যাওয়ার পরিকল্পনা করছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু। বিএনপি রাজ পথে আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণের ভোটাধীকার ফিরিয়ে আনবে। ভোটাধীকার প্রতিষ্ঠায় রাজ পথ একমাত্র ফয়সালা মন্তব্য করে যা বললেন শামসুজ্জামান দুদু।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ভোট না হলে অভ্যুত্থান- দুটোই সাংবিধানিক পদ্ধতি। তাই ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠায় রাজপথ হবে একমাত্র ফয়সালা।

বুধবার (২৭ জুলাই) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক স্মরণসভায় তিনি এ কথা বলেন। স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রয়াত সভাপতি শফিউল বারী বাবুর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দলটি এ স্মরণ সভার আয়োজন করে।

দুদু ব‌লেন, ‘তথাকথিত অনির্বাচিত নিশিরাতের প্রধানমন্ত্রী বলেন না কেন তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কিভাবে চেয়ারে বসে আছেন? তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন– ‘আপনারা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাও করতে আসেন, আমি আপনাদের চা খাওয়াবো।’ অথচ আমরা বিএনপির পক্ষ থেকে এমন কোনো কর্মসূচি দেইনি। তার মানে হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী এখন বিএনপির কর্মসূচি নির্ধারণ করতে চান।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে সাবেক এই ছাত্রনেতা বলেন, চায়ের দাওয়াত না দিয়ে জাতিকে বলুন, সেই সরকারের দুর্বলতা কাটিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার বহাল রাখার উদ্যোগ নিয়ে আলোচনা করুন,তাহলে আপনি মহারানী হয়ে থাকবেন।

তিনি বলেন, আমরা গণতন্ত্র চাই, ভোটের মাধ্যমে সরকার পরিবর্তন চাই। কিন্তু এর মানে এই নয়- ভোট না হলে সরকার পরিবর্তন করব না?

তিনি বলেন, আমরা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান, বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমানের বিশ্বস্ত কর্মী। আমরা জানি কিভাবে পরিবর্তন করতে হয়। আপনাকে (প্রধানমন্ত্রী) পরিবর্তন করতে ভোট নাকি গণঅভ্যুত্থান। ভোট না হলে গণঅভ্যুত্থান– দুটিই সাংবিধানিক পদ্ধতি। তাই ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার রাজপথ একমাত্র ফয়সালা হবে। এটা আমাদের নেতা তারিক রহমানের বক্তব্য- ফয়সাল রাজপথে হবে।

তিনি আরও বলেন, প্রয়াত শফিউল বারী বাবু ৮৯ সালের গণঅভ্যুত্থানের একজন নায়ক ছিলেন। তিনি বেঁচে থাকলে তিনিও অভ্যুত্থানের ডাক দিতেন। তার স্বপ্নকে সামনে রেখে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, ঢাকা মহানগর বিএনপি নেতা হাবিবুর রশিদ হাবিব প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, দেশে গনতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে বিএনপি রাজপথে আন্দোলনের করবে এবং সরকারকে ক্ষমতা থেকে হটাবে বলে মন্তব্য বিএনপির বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু। জনগনের ভোটাধীকার প্রতিষ্ঠা রাজ পথেই হবে বলে বিএনপির সিদ্ধান্ত বলে জানান এ নেতা।

About Babu

Check Also

হঠাৎ উপজেলা নির্বাচন নিয়ে নতুন সুর বিএনপির

আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে না বলে জানিয়েছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *