Tuesday , February 27 2024
Breaking News
Home / Countrywide / বিএনপিকে এর আগে কেউ এভাবে ধোয়নি যেভাবে ধুয়ে দিল এস এম কামাল, বাকি রইলো না কিছু

বিএনপিকে এর আগে কেউ এভাবে ধোয়নি যেভাবে ধুয়ে দিল এস এম কামাল, বাকি রইলো না কিছু

এস এম কামাল হলেন বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের একজন রাজনীতিবীদ। তিনি আওয়ামী লীগের সাধরণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এস এম কামাল তার দায়িত্ব সততা ও নিষ্ঠার সহিত পালন করে থাকেন। সম্প্রতি তিনি তার এক বক্তব্যে বলেছেন গণতন্ত্রের প্রাণনাশকারী হলো বিএনপি।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেছেন বিএনপি ভোট ডাকাত, ভোট চোর, জঙ্গিবাদ, দুর্নীতিবাজ, অবৈধ ক্ষমতা দখলকারী ও গণতন্ত্রের প্রাণনাশকারী দল।

মঙ্গলবার নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এস এম কামাল হোসেন বলেছেন: অবৈধ ক্ষমতা দখলকারীদের ইতিহাস জিয়াউর রহমানের অবৈধ ক্ষমতা দখলের মাধ্যমে শুরু হয়েছিল এবং বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়া এতিমের টাকা আত্মসাৎ করে তা অব্যাহত রেখেছে। আর আজ সেই দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলছেন, আওয়ামী লীগ সরকার অবৈধ সরকার, ফ্যাসিবাদী সরকার, স্বৈরাচারী সরকার। আমি মির্জা ফখরুলকে বলতে চাই, শেখ হাসিনার সরকার যদি অবৈধ সরকার, ফ্যাসিবাদী সরকার, স্বৈরাচারী সরকার হয়, তাহলে জিয়াউর রহমান কী ছিলেন?

তিনি আরও বলেন জিয়াউর রহমান রাতের অন্ধকারে পিস্তল হাতে ক্ষমতায় আসেন। মির্জা ফখরুল পাকিস্তানের ইতিহাস পড়েছেন, বাংলাদেশের ইতিহাস নয়। আপনার নেতা জিয়াউর রহমান বেলা ১২টার পর বঙ্গভবনে প্রবেশ করলেন, বিচারপতি সায়েমের বিছানায় পা রেখে বললেন, সই করো। বিচারপতি সায়েম পেপার পড়েন, তার পদত্যাগপত্র দেখেন। তিনি জিয়াউর রহমানের দিকে তাকালেন, দেখলেন জিয়াউর রহমান কোমর থেকে পিস্তল বের করে ৮ থেকে ৯ জন সেনা কর্মকর্তা তাকে ঘিরে রেখেছেন, জিয়াউর রহমানের এক হাতে লাঠি আর অন্য হাতে পিস্তল। বিচারপতি সায়েম বলেন, আমি ভয়ে পদত্যাগপত্রে সই করেছি। তুমি সেই জিয়াউর রহমানের কর্মী যে এই রাতের অন্ধকারে পিস্তল দিয়ে ক্ষমতা দখল করেছিল। জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রপতি, তাকে কে রাষ্ট্রপতি করলেন? সংবিধানের কোন ধারায় তিনি রাষ্ট্রপতি হন? তিনি ছিলেন একজন অবৈধ স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট।

কামাল হোসেনকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, মির্জা ফখরুল, আপনি শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করেন, কেউ কিছু বলেন না। কিন্তু আপনি জননেত্রী শেখ হাসিনার শান্তি সভায় ১১টি গ্রেনেড ছুড়েছেন। আল্লাহর রহমতে শেখ হাসিনা সেদিন বেঁচে গেলেও নারী নেত্রী আইভি রহমানসহ ২২ জন প্রাণ হারান। ৬৩ জেলায় ৫০০ বোমায় রক্তাক্ত হয়েছিল বাংলাদেশ। এই মির্জা ফখরুলের গণতান্ত্রিক দল বিএনপি।

তিনি আরও বলেন: বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার সাবেক জ্বালানি উপদেষ্টা মাহমুদুর রহমান নিজেও সেদিন স্বীকার করেছিলেন যে বিএনপি সরকার দশ ট্রাক অস্ত্র বাংলাদেশে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অস্ত্র পাচারকারীদের দল বিএনপি। আর বিদ্যুতের কথা বলতে গিয়ে আপনাদের নেতা বিএনপির প্রতিমন্ত্রী মেজর জেনারেল আনোয়ার কবির তালুকদার বলেছেন, বিএনপি আমলে বিদ্যুৎ খাতে ৬ হাজার কোটি টাকা লুটপাট হয়েছে। এটা আপনার দল.

বাগাতিপাড়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বাগাতিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নাটোর জেলা শাখার সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস। আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সৈয়দ আব্দুল আউয়াল শামীম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, শহিদুল ইসলাম বকুল এমপি, নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজানসহ অনেকে বক্তব্য রাখেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের প্রত্যেকটি নাগরিকের দায়িত্ব হলো দেশের উন্নয়নে একত্রিতভাবে কাজ করে যাওয়া। দেশের প্রতি দায়িত্ব ও কর্তব্য সবারই আছে। সেই দায়িত্ব ও কর্তব্য যথাপুযুক্তভাবে কাজে লাগিয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওটাই স্বার্থকতা।

About Shafique Hasan

Check Also

স্বামীকে ‘দুলাভাই’ পরিচয় দেওয়া সেই যুবলীগ নেত্রী রিমান্ডে

জালিয়াতির মাধ্যমে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে পাবনা জেলা যুব মহিলা লীগের সদস্য মিম খাতুন ওরফে আফসানা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *