Wednesday , February 21 2024
Breaking News
Home / Countrywide / ঘর ছেড়ে চলে যাওয়া স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনতে অভিনব আল্টিমেটাম দিয়েছেন স্বামী

ঘর ছেড়ে চলে যাওয়া স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনতে অভিনব আল্টিমেটাম দিয়েছেন স্বামী

প্রায় সময় স্বামী-স্ত্রীর ভিতরে পারিবারিক কোলাহল লেগেই থাকে। কোলাহলের জের ধরে নিজেদের সংসারের সুখ শান্তি অনেকটা চলেই গেছে বললে চলে। এক পর্যায়ে পারিবারি এই কোলাহলের হাত থেকে মুক্তি পেতে নিজের স্বামীর ঘট ছেড়ে চলে যান স্ত্রী। বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়ে নিজের চায়ের দোকানে গিয়ে অবস্থান নেন।

বরগুনায় পারিবারিক কলহের জেরে বাড়ি ছেড়ে যাওয়া স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনতে না পেরে নিজ বাড়িতে কবর খুঁড়েছেন স্বামী জাফর গাজী (৫০)। গতকাল বিকেল ৫টার দিকে সদর উপজেলার আয়ালা ইউনিয়নের কদমতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি আশপাশের গ্রাম পুলিশসহ স্থানীয়রা জানতে পেরে জাফর গাজীকে তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কদমতলা বাজারে নিয়ে আসে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। মানুষ কবর দেখতে ভিড় করছে। আইলা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ সাইফুল ইসলাম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, জাফর ও হাজেরা পরিবার এক শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে একসঙ্গে রয়েছে। তাদের পারিবারিক জীবনে প্রায় প্রতিদিনই বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ঝগড়া হয়। এক সপ্তাহ আগে ইউনিয়ন পরিষদে দুই পক্ষের মধ্যে সালিশ বৈঠক হয়। হাজরা সালিশ মানে না। একমাস ধরে দুজনেই বিচ্ছেদ।

হাজেরা বাজারে একটি দোকান নিয়ে সেখানে থাকেন। নিজের বাড়িতে কবর খননের খবর পেয়ে আমি দ্রুত ছুটে যাই জাফরকে কবর খনন থেকে বিরত রাখতে। এ প্রসঙ্গে জাফর গাজী বলেন, ১৩ বছর আগে ঢাকায় হাজেরাকে বিয়ে করি। বিয়ের পর থেকেই হাজেরা তার কথায় অবাধ্য ছিলেন। পরে তারা বরগুনার গ্রামের বাড়িতে বসবাস শুরু করেন। এখানেও কিছুদিন পর পারিবারিক কলহ দেখা দিলে দুজনে আলাদা থাকতে শুরু করে। হাজেরা প্রায়ই তাকে মারধর ও অশ্লীল গালিগালাজ করতেন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিকে একাধিকবার সালিশ করা হলেও তা মানছেন না হাজরা। অবশেষে চলতি বছরের ২২ জুন (বুধবার) ক্ষোভে নিজের চায়ের দোকানে থাকতে শুরু করেন হাজেরা। পরে তাকে দোকান থেকে বাড়ি ফিরিয়ে আনার অনেক চেষ্টা ব্যর্থ হলে তিনি নিজের কবর খুঁড়তে শুরু করেন।

জাফর গাজী বলেন, বাইরে আমার কোনো জায়গা নেই, আল্লাহ যখন প্রয়ান রাখেন তখন আমি এই কবরেই থাকতে চাই। সাংবাদিকদের কাছে হাজেরা ভিন্ন অভিযোগ করে বলেন, ১৩ বছর আগে বিয়ের সময় জাফর গাজী তার সঙ্গে প্রতারণা করেছিলেন। জাফর তার আগের স্ত্রীকে তালাক না দিয়ে মিথ্যা তালাক তৈরি করেছে দেখিয়ে আমাকে বিয়ে করেছে। এ নিয়ে ঝগড়া শুরু হলে তারা গ্রামে চলে যায়। বর্তমানে সংসারে অসাবধানতার কারণে প্রায়ই তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকে। এখন সে জাফরকে বিয়ে করতে রাজি নয়। স্থানীয় ইউপি সদস্য কাজী মোখলেছুর রহমান জানান, মানসিক বিপর্যয়ের কারণে জাফরকে তার বাড়ি থেকে কদমতলা বাজারে নিয়ে আসে গ্রাম পুলিশ। এ ব্যাপারে পুলিশ পরবর্তী ব্যবস্থা নেবে। বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহমেদ বলেন, বিষয়টি আপনার মাধ্যমে শুনেছি। কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আমরা ব্যবস্থা নেব।

উল্লেখ্য, আগের স্ত্রীকে তালাক না দিয়েই মোখলেছুর রহমার তার দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে সংসার করার জন্য প্রায় তাদের ভিতরে কোলাহলের সৃষ্টি হতো। একপর্যায়ে প্রতারনার এবং পারিবারিক এই কোলাহলের হাত থেকে নিজেকে মুক্তি দিতে ঘর ছেড়ে চলে যান স্ত্রী। সেই স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনতে গিয়ে ব্যার্থ হয়ে নিজের ঘরের ভিতরেই কবর খুরে রাখেন স্বামী। স্ত্রী না ফিরলে সেই কবরেই চিরদিনের জন্য শাইত হবেন তিনি এমনটাই স্ত্রীকে আলটিমেটাম দিয়েছেন স্বামী।

 

 

 

About Syful Islam

Check Also

এবার বিদ্যুৎ নিয়ে দুঃসংবাদ দিলেন নসরুল হামিদ

আমরা শীঘ্রই জ্বালানির দাম সমন্বয় করতে চাই। গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *