Tuesday , February 27 2024
Breaking News
Home / Countrywide / জানা গেল কত দিনের কারাদন্ড হলো আলোচিত সেই সাবরিনা দম্পতির

জানা গেল কত দিনের কারাদন্ড হলো আলোচিত সেই সাবরিনা দম্পতির

জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারপারসন ডা. সাবরিনা চৌধুরী ও তার স্বামী কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আরিফুল হক চৌধুরীসহ আটজনের বিরুদ্ধে সাজা হবে। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেন এ রায় ঘোষণা করেছেন। জেকেজি হেলথ কেয়ারের শীর্ষ কর্মকর্তা ডা. সাবরিনা চৌধুরী মহামারি সংক্রামনের নমুনা পরীক্ষার নামে প্রতারণা ও জাল সনদ দেওয়ার মামলায় সাবরিনা ও আরিফুল চৌধুরীসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে করা মামলার রায় দিয়েছে বিজ্ঞ আদালত।

জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী এবং তার স্বামী প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আরিফুল হক চৌধুরীকে ১১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। এর আগে সকালে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে প্রিজন ভ্যানে আসামিদের ঢাকা মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে আনা হয়। পরে তাকে আদালতের কক্ষে রাখা হয়। উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত ২৯ জুন বিচারক তোফাজ্জল হোসেন রায়ের জন্য এ দিন ধার্য করেন। মামলার চার্জশিটে অন্য আসামিরা হলেন, ডা. সাবরিনার স্বামী প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আরিফুল হক চৌধুরী, কর্মকর্তা আবু সাঈদ চৌধুরী, হুমায়ুন কবির হিমু ও তার স্ত্রী তানজিলা পাটোয়ারী, জেকেজি হেলথকেয়ারের নির্বাহী কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম রোমিও, স্বত্বাধিকারী জেবুর রহমান।

এবং বিপ্লব দাস। তারা সবাই জেলে। রায়ে আসামিদের সর্বোচ্চ সাত বছরের সাজা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আজাদ রহমান। মামলায় ৪০ জনের মধ্যে ২৬ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মহামারি সংক্রামনের শনাক্ত করতে নমুনা সংগ্রহ করে ২৭ হাজার জনকে পরীক্ষা না করেই রিপোর্ট দিয়েছেন ডা. সাবরিনা ও তার স্বামীর কোম্পানি জেকেজি হেলথকেয়ার। ২৩ জুন, ২০২০-এ, এই অভিযোগে সংস্থাটি সিলমোহর করা হয়েছিল। পরে তাদের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা হয়। ২০২০ সালের ২০ আগস্ট সাবরিনাসহ আট আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরু করেন আদালত।

উল্লেখ্য, জেকেজি হেলথকেয়ার ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পরীক্ষা না করেই সংক্রামনের শনাক্তকরণের জন্য নমুনা সংগ্রহ করে ২৭ হাজার জনকে রিপোর্ট দেয়। এর মধ্যে বেশির ভাগই জাল পাওয়া গেছে। ২৩ জুন, ২০২০-এ, এই অভিযোগে সংস্থাটি সিলমোহর করা হয়েছিল। পরে তাদের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা হয় এবং দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

 

 

About Syful Islam

Check Also

স্বামীকে ‘দুলাভাই’ পরিচয় দেওয়া সেই যুবলীগ নেত্রী রিমান্ডে

জালিয়াতির মাধ্যমে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে পাবনা জেলা যুব মহিলা লীগের সদস্য মিম খাতুন ওরফে আফসানা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *