Wednesday , April 24 2024
Breaking News
Home / Countrywide / ২০ বছরে যুবকের সঙ্গে মায়ের পরকিয়ায় তিন মেয়েদের সম্মতি

২০ বছরে যুবকের সঙ্গে মায়ের পরকিয়ায় তিন মেয়েদের সম্মতি

তিন কন্যা সন্তানের মায়ের সাথে পরকিয়ার সম্পর্কে জরিয়ে ২০ বছর বয়সী এক যুবক ব্যাপক সমালোচনার সম্মুক্ষিন হন। অভিযুক্ত ঐ যুবক ধুসরাইল গ্রামের আনিছ মোল্লার ছেলে আশরাফুল। মাগুরর ( Ashraful. Magurar ) মোহাম্মাদপুরে এই সমালোচিত ঘটনাটি সামাজিক গনমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর পরই এই সমালোচনার জন্ম নেয়। প্রতক্ষ্যদর্শীরা উক্ত ঘটনার বর্ননায় সামাজিক গনমাধ্যম কর্মীদের নিকট বলেন, অভিযুক্ত ঐ যুবক প্রায়ই তিন জননীর ঐ মায়ের কাছে আসা যাওয়ার ব্যাপরটি সন্দেহ জনক হলে এলাকাবাসী তাদের নিষেধ করেন। তবে তারা এই সকল নিষেধ উপেক্ষা করে তাদের যোগাযোগ অব্যাহত রাখলে, এলাকাবাসী তাদের হাতেনাতে ধরে প্রশাসনের কাছে সপর্দ করেছে।

মাগুরা মোহাম্মদপুরের তিন সন্তানের জননীকে আশরাফুল ইসলাম (২০) নামে এক যুবককে বিয়ে করবেন। শুক্রবার ( Friday ) রাতে গৃহবধূর সাবেক স্বামীর বাড়ি থেকে সাবেক প্রেমিককে আটক করে এলাকাবাসী। আশরাফুল মোহাম্মদপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের ধুসরাইল গ্রামের আনিছ মোল্লার ছেলে। গৃহবধূর বাড়ি পাশের গ্রামে। তার তিন মেয়ে। তাদের একজনের বয়স ১৮ বছর, একজনের বয়স ১০ বছর এবং অন্যজনের বয়স ৫ বছর। মোহাম্মদপুর থানার এসআই মোক্তার হোসেন ( Moktar Hossain ) ও স্থানীয়রা জানান, আশরাফুল দীর্ঘদিন ধরে ওই গৃহবধূর বাড়িতে গোপনে আসা-যাওয়া করত। বিষয়টি জানতে পেরে এলাকাবাসী ও গৃহবধূর স্বামীর স্বজনরা আশরাফুলকে একাধিকবার নিষেধ করেন। কিন্তু কোনো বাধাই তাদের থামাতে পারবে না। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে শুক্রবার ( Friday ) গভীর রাতে ওই গৃহবধূর বাড়ি থেকে স্থানীয় কয়েকজন আশরাফুলকে আটক করে। পরে পুলিশকে ( police ) খবর দিলে পুলিশ এসে জনগনের হাত থেকে তাদের উদ্ধার করে।

পরে তিনি স্থানীয় সদস্য ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানান যে তারা বিয়ে করবেন। মেয়েরা জানতে চাইলে তারাও বলে তার মা যেন ওই যুবককে বিয়ে করেন। পরে পুলিশ লিখিতভাবে স্থানীয় এক সদস্যের হেফাজতে নেয়। রবিবার ( Sunday ) তারা আদালতে যাবেন এবং প্রাক্তন স্বামীকে তালাক দিয়ে বিয়ে করবেন। গৃহবধূর স্বামী বলেন, আমি ঢাকায় ( Dhaka ) রাজমিস্ত্রির কাজ করি। আমার তিন মেয়ে আছে। তার বড় মেয়েকে বিয়ে করেছি। ব্যস্ততার কারণে ঢাকা থেকে কম বাসায় আসতে হচ্ছে। আমার ছেলে না হওয়ায় আমার স্ত্রীকে আশরাফুল মা বলে ডাকতেন। তাই আমি তাকে সন্দেহ করিনি। আশরাফুল আমার বাসায় এসে বউয়ের সাথে গল্প করতো। এলাকাবাসী বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে নিলে আমি আশরাফুলকে আমার বাড়িতে আসতে নিষেধ করি। কিন্তু তারা আমার কথা অমান্য করে গভীর রাতে আমার বাড়িতে আসে।

তিনি বলেন, ঘটনার দিন সকালে ( morning ) আমি আমার স্ত্রীকে ফোন করি এবং সে আমাকে বলে- আমি তোমাকে বিয়ে করব না। মোহাম্মদপুর মাগুরার ( Mohammadpur Magura ) ওসি ইকরাম হোসেন যুগান্তরকে ( Ikram Hossain Jugantar ) জানান, তারা বিয়ে করবেন। তাদের স্থানীয় একজন সদস্যের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে। রোববার আদালতে বিয়ে করবেন তারা।

উল্লেখ্য, পরকিয়ার ঘটনায় সমালোচিত ২০ বছর বয়সী আশরাফুল নামক যুবকের সাথে সম্পৃক্ত তিন কন্যা সন্তানের মায়ের বিবাহের সিদ্ধান্তে একমত পোষন করেছেন অভিযুক্ত দুজনেই। অভিযুক্ত নারীর তিন কন্যা সন্তানের বয়স যথাক্রমে ১৮, ১০ এবং ৫ বছর। তার মেয়েরাও তাদের এই বিয়েতে একমত। তারাও তাদের মায়ের সাথে ঐ ২০ বছর বয়সী যুবকের বিয়ের বিষয়ে রাজি আছেন বলে সামাজিক গনমাধ্যম কর্মীদের প্রশ্নের জবাবে জানিয়েছেন। অপরদিকে অভিযুক্ত নারীর স্বামী একজন রাজমিস্ত্রি। তার স্বামী গনমাধ্যম কর্মীদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, তার স্ত্রী তার সাথে আর সংসারে আগ্রহী নন এমন কথা তাকে ঘটনার দিন ফোনে জানিয়েছেন।

About Syful Islam

Check Also

অবন্তিকার পর এবার একই পথে হাঁটল মীম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আ/ত্মহত্যা করেছে। শিক্ষার্থীর নাম শারভীন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *