Sunday , April 21 2024
Breaking News
Home / opinion / সুযোগ পেলেই ইস্যু হিসেবে নেবে বিএনপি জামায়াত: আবদুল গাফ্‌ফার চৌধুরী

সুযোগ পেলেই ইস্যু হিসেবে নেবে বিএনপি জামায়াত: আবদুল গাফ্‌ফার চৌধুরী

দেশে দ্রব্যমূল্যের দামের উর্ধ্বগতির বিষয়ে অনেকে উদাহরন টেনে বলছেন, দেশে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে যাচ্ছে, টাকাভর্তি ব্যাগ নিয়ে পকেটভর্তি বাজার করার মতন অবস্থা হতে পারে। এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়, যখন পণ্যের মূল্যের থেকে টাকার মূল্য কম হয়ে যায়। যাকে আমরা অর্থনীতির ভাষায় মুদ্রাস্ফীতি বলি। বর্তমানে আমাদের দেশে মূল্যস্ফীতি অকল্পনীয় বিপর্যস্ততা দেখা যাচ্ছে। অর্থনীতিতে মুদ্রাস্ফীতির তীব্র বৃদ্ধি অথবা্ হ্রাসের মত অভিজ্ঞতা হতে পারে রাষ্ট্রে। এমন অনেকগুলি কারণ রয়েছে। কারণ যাই হোক না কেন, তীব্র বৃদ্ধি অথবা হ্রাস এটা কোনো রাষ্ট্রের জন্যই ভালোকিছু বয়ে আনে না।

বাংলাদেশের অর্থনীতির উন্নয়নে আমরা এতদিন গর্বিত, হঠাৎ করেই আঘা’ত পেয়েছি। দেশ যেমন মুদ্রাস্ফীতি দেখেছে, তেমনি মুদ্রাস্ফীতিও হয়েছে। চাল-ডাল থেকে শুরু করে নিত্যপণ্যের দাম এতটাই বেড়েছে যে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য জীবন নির্বাহ করা কঠিন হয়ে পড়েছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর ( Bangladesh Bureau Statistics ) (বিবিএস ( BBS )) মূল্যস্ফীতির হিসাব বাস্তব পরিস্থিতির সঙ্গে মেলে না।বেসরকার ( Government )ী গবেষণা প্রতিষ্ঠান সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক ফর ইকোনমিক মডেলিং ( South Asian Network Economic Modeling ) (সানেম ( Sanem )) বৃহস্পতিবার ( Thursday ) একটি ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বলেছে যে বিবিএস ( BBS ) জানুয়ারিতে পয়েন্ট-টু-পয়েন্ট ভিত্তিতে জানুয়ারিতে ৫.৮৬ শতাংশ মূল্যস্ফীতি জানিয়েছে, তারা ১১.৩৬ শতাংশ মূল্যস্ফীতি পেয়েছে। গ্রামীণ এলাকা শতাংশ. সানেম ( Sanem )ের মতে, শহর এলাকায় মূল্যস্ফীতি ছিল ১২.৪৭ শতাংশ এবং গ্রামীণ এলাকায় ১২.১০ শতাংশ।

অন্যদিকে, মূল্যস্ফীতি ও মূল্যস্ফীতির দিকে বাংলাদেশকে কড়া নজর রাখার পরামর্শ দিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। তাদের মতে, করোনাভাইরাস মহামারীর পর দক্ষিণ এশিয়ার ( South Asian ) সর্বত্রই দ্রব্যমূল্য মাথাব্যথা হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইউক্রেনে ( Ukraine ) রাশিয়ার আগ্রাসনের পর পশ্চিমা অবরোধে বিশ্ববাজারে অস্থিতিশীলতা। ২০১৪ সালের পর প্রথমবারের মতো ব্যারেল প্রতি অপরিশোধিত তেলের দাম ১০০ ডলার ছাড়িয়েছে। ২০২১-২২ বাজেটে, বাংলাদেশ সরকার ( Government ) ( Government Bangladesh ) মূল্যস্ফীতি ৫.৩ শতাংশে রাখার পরিকল্পনা করেছিল, তবে গত আগস্ট ( Last August ) থেকে এটি ক্রমাগতভাবে বাড়ছে। তবে সরকার ( Government ) মহামারী মোকাবেলা করতে পেরেছে। সরকার ( Government )ের সাফল্যের প্রশংসা করেছে আইএমএফ।প্রতিবেদনে বলা হয়, মহামারী সংকট শুরু হলে বাংলাদেশের সামগ্রিক অর্থনীতি স্থিতিশীল ছিল। লকডাউন চলাকালীন উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেলে বিপুল সংখ্যক লোক তাদের চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে রয়েছে। এরপর সরকার ( Government ) ২৮টি প্যাকেজের মাধ্যমে ১,৮৭,৬৭৯ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করে, যা দেশের জিডিপির ৬ শতাংশের সমতুল্য। একই সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ খাতের দৈনন্দিন খরচ কমানো এবং দেশের অধিকাংশ মানুষকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দ্রুত টিকা দেওয়া জরুরি। আইএমএফের ( IMF ) প্রতিবেদনেও এসব উল্লেখ করা হয়েছে।

 

About bisso Jit

Check Also

ভারতীয় হাই কমিশন সেলস কলে যায় বাংলাদেশ থেকে ভারতে রোগী যাওয়া কমে গেলে: পিনাকী

সম্প্রতি দ্বাদশ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ আবারও একতরফা ভোট করে ক্ষমতা দখল করেছে।আর আওয়ামীলীগকে অবৈধ্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *