অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশের অনূর্ধ্ব-১৯ টাইগাররা। বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেটাররা বিশ্বকাপে ব্যার্থ হলে ও হননি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট টাইগাররা। সারা বিশ্বকে অবাক করে তারা নিজেদের ঘরে নিয়ে এলো বিশ্বকাপ ট্রফি। আর এই বিশ্বকাপ জয়ী ক্ষুদে বাঘদের সাদরে বরণ করছেন বাংলাদেশী ক্রিকেট প্রেমীরা।
বিশ্বজয়ী যুব ক্রিকেট দলকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বরণ করে নিয়েছে বাংলাদেশ অতীতে অনেকবারই বিজয়ী ক্রীড়াবিদদের বিমানবন্দরে ফুল দিয়ে বরণ করে নিয়েছেন বাংলাদেশ। কিন্তু আজ বিমানবন্দরে সম্পূর্ণ অন্য আবহ। অন্য রকম উৎসব। এবার যে বিশ্বজয়ী ক্রীড়াবিদদের বরণ করে নিল বাংলাদেশ।
দক্ষিণ আফ্রিকায় অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী যুব ক্রিকেট দল ঢাকায় এসে পৌঁছে বিকেল ৫টার একটু আগে। আকবর আলী, তৌহিদ হৃদয়দের ফুলের মালা দিয়ে বরণ করে নেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নাজমুল হাসান। এ সময় ক্রীড়া মন্ত্রণালয় ও বিসিবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


বিমানবন্দরের বাইরেও বিপুল জনতার ভিড়। বিভিন্ন ব্যানার–ফেস্টুন আর জাতীয় পতাকা নিয়ে তারা এসেছেন অনূর্ধ্ব–১৯ দলের বিজয়ের আনন্দে শরীক হতে। ক্রিকেটারদের ছবি দিয়ে সাজানো একটি বাসে করে আকবর–রকিবুলদের এ মুহূর্তে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। বাসে ক্রিকেটারদের সঙ্গে ছিলেন বিসিবি সভাপতি। সন্ধ্যায় বিসিবি কার্যালয়ে খেলোয়াড়দের দেওয়া হবে সংবর্ধনা। আনুষ্ঠানিকভাবে মুখোমুখি হবেন খেলোয়াড়েরা। বিমানবন্দর থেকে মিরপুরের পথে ক্রিকেটারদের বাসের সঙ্গে ছিল শতশত মোটর সাইকেল।

রাতে বিশ্বজয়ী যুবা ক্রিকেটারদের সম্মানে আয়োজিত হবে নৈশভোজ।


প্রসঙ্গত, হাজার ও জনতা ভিড় জমিয়েছে আকবর আলী, তৌহিদ হৃদয়দের ফুলের মালা দিয়ে বরণ করে নেবার জন্য। এ যেন অন্যরকম উৎসব। আনন্দোর জোয়ারে ভাসছে এদেশের ক্রিকেট প্রেমীরা। ভারতের বিপক্ষে ৩ উইকেটের সম্মানজনক জয় যুবাদের এনে দিয়েছে বিশ্ব জয়ের সাদ। তবে এই জয়ের পেছনেও রয়েছে নানা ধরনের আলোচনা সমালচনা।