বাংলাদেশে করোনা ছড়িয়েছে প্রায় ৮ মাসেও কিছু বেশি সময়ে। আর এই সময়ের মধ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে একেবারেই লাগামহীন ভাবে। প্রতিনিয়তই দেশে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলছে। জানা যায় করোনার একদিনে আরো ২৪ জনের মৃত্যুতে দেশে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা পৌনে ছয় হাজারের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। সেই সঙ্গে আরো ১ হাজার ৬৯৬ জনের মধ্যে এ ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে, যা গত এক মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ।

বুধবার বিকালে সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির এই সবশেষ তথ্য জানানো হয়।

সেখানে বলা হয়, সকাল ৮টা পর্যন্ত শনাক্ত ১ হাজার ৬৯৬ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৮২৭ জন হল।

আর গত এক দিনে মারা যাওয়া ২৪ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ৫ হাজার ৭৪৭ জনে দাঁড়াল।

সর্বশেষ এক দিনে এর চেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছিল গত ২১ সেপ্টেম্বর, সেদিন ১ হাজার ৭০৫ জন নতুন রোগী শনাক্তের কথা জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এরপর দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১০০ থেকে ১৬৮৪ জনের মধ্যে ঘোরাফেরা করেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ১ হাজার ৬৮৭ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত এক দিনে। তাতে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ৩ লাখ ১০ হাজার ৫৩২ জন হয়েছে।

অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১০টি ল্যাবে ১৪ হাজার ৯৫৮ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২২ লাখ ২১ হাজার ৩৬৯ টি নমুনা।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১১ দশমিক ৩৪ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৮ দশমিক ৬৫ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত ৮ মার্চ, তা সাড়ে তিন লাখ পেরিয়ে যায় ২১ সেপ্টেম্বর। এর মধ্যে গত ২ জুলাই ৪ হাজার ১৯ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়, যা এক দিনের সর্বোচ্চ শনাক্ত।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ১০ অক্টোবর তা সাড়ে পাঁচ হাজারে দাঁড়ায়। এর মধ্যে ৩০ জুন এক দিনেই ৬৪ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়, যা এক দিনের সর্বোচ্চ মৃত্যু।

বিশ্বে এ পর্যন্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৪ কোটি ১২ লাখ ছাড়িয়ে গেছে; মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ১১ লাখ ৩১ হাজারের ঘরে।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় বিশ্বে শনাক্তের দিক থেকে অষ্টাদশ স্থানে আছে বাংলাদেশ, আর মৃতের সংখ্যায় রয়েছে ৩১তম অবস্থানে।


এ দিকে বিশ্বের করোনা পরিস্থিতিও এখন বেশ লাগামহীন হয়ে উঠেছে। নতুন আবারো আক্রান্ত হচ্ছে ইউরপোপের দেশ গুলো। জানা গেছে ইতিলাতি আবারো করোনা সংক্রমণ বেড়ে গেছে। আর এই কারনে দেশটি আবারো জারি করা হচ্ছে জরুরী অবস্থা। এ ছাড়াও কানাডার অবস্থাও করোনার কারনে বেশ বেগতীক হয়ে আছে। এবং আসন্ন শীতেও বাংলাদেশে করোনা নতুন করে আরো একটি থাবা বসাবে বলে ধারনা করা যাচ্ছে।

News Page Below Ad

আরো পড়ুন

এবার পাকিস্তানিদের ভিসা বন্ধ করলো আরব আমিরাত, জানা গেল কারন

21 November, 2020 | Hits:214

আবারো আলোচনায় পাকিস্তান আর আরব আমিরাতের সম্পর্ক। তবে এবার বেশ খানিকটা সমালোচনাও হচ্ছে এই দু’দেশের সম্পর্কে। জানা গেছে সং...

তবে কি সত্যিই ক্ষমতা ছেড়ে দিচ্ছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন

23 November, 2020 | Hits:113

রাশিয়া পৃথিবীর অন্যতম শক্তিধর একটি দেশ। দেশটির প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিযুক্ত রয়েছেন ভ্লাদিমির পুতিন। তার নাম সারা বিশ্বেই ছ...

ডিসেম্বর মাস এলেই এই সমাধিতে জ্বলে ওঠে আলো, জানা গেল কারন

22 November, 2020 | Hits:112

মানুষের সর্বশেষ আশ্রয়স্থল কবর বা সমাধিস্থল। একটা মানুষের জীবনের জন্ম থেকে শুরু করে মৃত্যু পর্যন্ত অনেক আশ্রয়ের খোজ থাকলে...