লন্ডনের মেয়র থাকাকালে ৫ লাখেরও বেশি অবৈধ অভিবাসীকে বৈধতা দিতে তৎকালীন সরকারকে আহ্বান জানিয়েছিলেন বরিস জনসন।
বৃহস্পতিবার হাউস অব কমন্সে এ বিষয়ে নতুন প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত এমপি রুপা হক। জানতে চান, অবৈধদের সাধারণ ক্ষমার আওতায় এনে বৈধতা দেয়া হবে কী না?

এর জবাবে বরিস জানান, আগের সরকার অবৈধদের বের করে দিতে চেয়েছিলো। কিন্তু তার সরকার আন্তরিক।

ব্রিটেনে এক লাখের বেশি বাংলাদেশিসহ ৫ লাখ অনথিভুক্ত অভিবাসী বৈধ হচ্ছেন। হাউজ অব কমন্সে বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত এমপি রূপা হকের প্রশ্নের জবাবে এমন আশ্বাস দিয়েছেন যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

এ সময় বরিস জনসন এই ইস্যুতে আগের সরকারের সমালোচনা করে দাবি করেন, অভিবাসীদের সমস্যা সমাধানে তিনি সব সময়ই আন্তরিক।
২০০৯ সালে বরিস বলেছিলেন ১০ বছরের বেশি সময় যারা অবৈধভাবে ব্রিটেনে আছে তাদের বৈধতা দিলে একদিকে বৈধ শ্রমিক মিলবে, অন্যদিকে সরকার ট্যাক্সও পাবে। বর্তমানে ৫ লাখেরও বেশি বৈধ অভিবাসীর পাশাপাশি সেখানে এক লাখেরও বেশি অবৈধ বাংলাদেশি রয়েছেন।

বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতারা বলছেন, বরিসের বক্তব্য কার্যকর হলে ১ লাখেরও বেশি বাংলাদেশির বৈধতা মিলতে পারে।
-(ভিডিও)Channel 24