করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে বহুল আলোচিত। যতদিন যাচ্ছে করোনার ভয়াবহতা হুহু করে বাড়ছে। করোনা নিয়ে বিশ্বে চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা যত গবেষনা করছে তত উদ্বেগজনক তথ্য জনসম্মুখে আসছে। করোনার তান্ডবে সারা পৃথিবীর মানুষ দিশেহারা। করোনা ভাইরাস প্রথমে চীনে শনাক্ত হয়। বর্তমানে এ ভাইরাস বিশ্বে ২১২ টিরও বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। করোনা ভাইরাস ভয়াল ছোঁবলে লক্ষ লক্ষ মানুষ।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display


নভেল করোনাভাইরাস প্রাকৃতিক কোনো বিষয় নয়, বরং এটি মানুষের তৈরি বলে মন্তব্য করেছেন জাপানের নোবেল বিজয়ী অধ্যাপক তাসুকু হোনজো।


সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এমন চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করেছেন তিনি।

নোবেল বিজয়ী এ প্রফেসর বলেন, এতদিন পর্যন্ত গবেষণা করে আমি যে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি, তা থেকে আমি শতভাগ নিশ্চিত করে বলতে পারি, করোনাভাইরাস প্রাকৃতিক কোনো বিষয় নয়। এটা বাদুর থেকেও আসেনি। চীন এই ভাইরাসটি তৈরি করেছে।

তার মতে, ভাইরাসটি যদি প্রাকৃতিকই হতো তাহলে চীনের উহানের তাপমাত্রার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ আঞ্চলগুলোতেই এই ভাইরাস প্রভাব বিস্তার করতো। অথচ এই ভাইরাস সুইজারল্যান্ডের মতো দেশকে যেভাবে আক্রমণ করেছে, ঠিক একইভাবে মরু অঞ্চলের দেশগুলোতেও আক্রমণ করেছে।

তিনি বলেন, এটা যদি প্রাকৃতিকই হতো, তা হলে শুধু শীতপ্রধান অঞ্চলেই ছড়াতো এবং উষ্ণ অঞ্চলগুলোতে যেয়ে এই ভাইরাসটি মরে যেতো।

প্রফেসর হোনজো বলেন, আমি বিভিন্ন প্রাণী এবং ভাইরাস নিয়ে ৪০ বছর ধরে কাজ করেছি। কখনো ভাইরাসের এমন প্রকৃতি লক্ষ্য করিনি। এটা প্রাকৃতিক নয়, এটা মানুষের তৈরি এবং সম্পূর্ণরূপে আর্টিফিসিয়াল।

তিনি আরো বলেন, আমি চার বছর চীনের উহানের ল্যাবরেটরিতেই কাজ করেছি এবং ল্যাবরেটরির সব স্টাফের সঙ্গেই আমার পরিচয় আছে। করোনা মহামারী ছড়িয়ে পড়ার পর আমি তাদের সঙ্গে ফোনে বার বার আলাপ-আলোচনা করার চেষ্টা করেছি।

কিন্তু গত তিন মাস ধরে ল্যাবরেটরির সবগুলো টেলিফোন লাইন বন্ধ পাচ্ছি। এতে আমি বুঝতে পারছি, ওই ল্যাবরেটরির কোনো টেকনিশিয়ানই এখন আর জীবিত নেই।


প্রসঙ্গত, করোনা ভাইরাসে দাপটে সারা বিশ্ব আজ নাজেহাল অবস্থা। করোনা ভাইরাস নিয়ে চলছে সারা বিশ্বে তোলপাড় আলোচনা। করোনা ভাইরাসের তীব্রতা যত দিন যাচ্ছে তত নিয়ন্ত্রণের বাহিরে ছলে যাচ্ছে। করোনা ভাইরাসের ফলে গোটা পৃথিবী যেন মৃত্যুপরীতে পরিণত হয়েছে। এ ভাইরাসের ছোবলে ২,১১,৭৮০ জন মানুষ সারা পৃথিবীতে প্রাণ হারিয়েছেন। আর এ রোগে আক্রান্তদের হয়েছে ৩০,৭৫,১০২ জন।

News Page Below Ad

আরো পড়ুন

Error: No articles to display