সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাস একটি বহুল আলোচিত ভাইরাস। এ ভাইরাস প্রথম চীনের উহান শহরে শনাক্ত হয়ে বিশ্বের ১১৫ টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। যমদূতের মত ভয়ানক রূপ নিয়ে ইতিমধ্যে ২ লক্ষ ০৩ হাজারেরও বেশি মানুষের প্রাণ হরন করেছে। করোনা ভাইরাসে প্রকোপে ইতালী, ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র, চীন বিধ্বস্থ। সব থেকে বেশি ঝুঁকির ভিতরে রয়েছে বাংলাদেশি প্রবাসীরা। বাংলাদেশির কবর নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে কৌতূহল, পাশে স্থায়ী বেঞ্চের ব্যবস্থা দৃষ্টিনন্দন করে সাজানো।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display



চিরনিদ্রায় আছেন তিনি। পাশে বসার ব্যবস্থা। এই করোনাকালে মৃতের কবরের এমন ধরন!

করোনায় মৃতদের কবরের জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্রে, গণকবর দেওয়া হচ্ছে বাংলাদেশিদের- এমন নানা অপপ্রচারের সময় এ কবর সত্যি খানিকটা কৌতূহল বাড়ায়। নিউজার্সির মরগানভিলে মালবরো মুসলিম মেমোরিয়াল সিমেট্রিতে গেলে অনেকেরই নজর কাড়ছে এই কবর। একদম আলাদা করে সাজানো গোছানো। চারটি কবরের জায়গা নিয়ে সীমানা দেওয়া কবরটি। ১৯৪৭ সালের এপ্রিল মাসে জন্ম নেওয়া এক বাংলাদেশি নারীর কবর এটি। মৃত্যু হয়েছে গত ৮ এপ্রিল। কবরের গায়ে থাকা নামফলক বলছে, নিউইয়র্কের ব্রুকলিনের বাসিন্দা তিনি। গত ২৪ এপ্রিল দুপুরে এই কবরস্থানে গিয়ে দেখা গেছে, এখানে যারা এসেছেন তাদের অনেকেরই আগ্রহ আর কৌতূহল ছিল কবরটি নিয়ে। কেউ বলেছেন, প্রয়াত প্রিয় মানুষটির শেষ ইচ্ছে পূরণে হয়তো স্বজনদের এ আয়োজন। কারোর ধারণা, কবরের পাশে স্বজনদের প্রার্থনার জন্য এমন ব্যবস্থা। একজনকে দাফন করার মতো জায়গার দাম অঞ্চলভেদে ভিন্ন ভিন্ন। ৫০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ ডলার। আগে জায়গা কিনে রাখলে দাম কম পড়ে। কবরের জায়গা ছাড়াও মৃতদেহ সংরক্ষণ, ধোয়া ও দাফনের কাজ শেষ করতে আরও ২ থেকে ৩ হাজার ডলার ব্যয় হচ্ছে এ সময়ে


প্রসঙ্গত, করোনা ৩ অক্ষরের একটি শব্দের কাছে আজ গোটা পৃথিবীর মানুষ অসহায়। করোনার ভাইরাসের ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি এখনও দেখা বাকি আছে। করোনার তান্ডবে সারা বিশ্বের মানুষ দিশেহারা। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসের কারণে প্রান হারিয়েছে ৫৪,২৬৫ জন মানুষ। আর কোরনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৯,৬০,৮৯৬ জন মানুষ। হুহু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের মানুষ।

News Page Below Ad

আরো পড়ুন

Error: No articles to display