সাংবাদিক কাজল গত ২ মাস আগে নিখোঁজ হন ঢাকা থেকে। গত শনিবার গভীর রাতে ভারত সীমান্ত থেকে দেশে প্রবেশের সময় তাকে পুলিশ আটক করেন। এবং তার বিরুদ্ধে অণুপ্রবেশের মামালা দেন বিজিবি। সাংবাদিকের এমন কাজের জন্য ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন জানান এটা ব্যক্তি শত্রুতা বা সরকারের ইমেজ ক্ষুণ্ন করার উদ্দেশ্য এমনটা করা হয়েছে।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display


ব্যক্তি শত্রুতার দায় মেটাতে গিয়ে একটি দল ও সরকারের ইমেজ কীভাবে ক্ষুণ্ন হয় সাংবাদিক কাজলের পুরো ঘটনাটি তার একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

বেনাপোল সীমান্ত থেকে নিখোঁজ সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের খোঁজ পাওয়ার পর আটক করে তার বিরুদ্ধে অবৈধ অনুপ্রবেশের মামলা দিয়েছে (বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ) বিজিবি৷ এরপর তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে কথা বলেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সুমন।

সোমাবার (৪ মে) ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, ’ব্যক্তি শত্রুতার দায় মেটাতে গিয়ে একটা দল ও সরকারের ইমেজ কীভাবে ক্ষুণ্ন হয় সাংবাদিক কাজলের পুরো ঘটনাটি তার একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ। হে আল্লাহ, তুমি আমাদেরকে দেরি হওয়ার আগেই বোঝার শক্তি দাও’।

উল্লেখ্য, ১০ মার্চ বাসা থেকে বের হওয়ার পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন ’পক্ষকাল’ পত্রিকার সম্পাদক ও বণিক বার্তার ফটোসাংবাদিক কাজল৷ প্রায় দুই মাস পর মুক্ত গণমাধ্যম দিবসে তাকে আটকের খবর জানায় বেনাপোল বন্দর থানা।

ওসি মামুন খান জানান, শনিবার গভীর রাতে বিজিবি রঘুনাথপুর সীমান্ত থেকে এক ব্যক্তিকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়৷ পরে জানা যায় ওই ব্যক্তি ঢাকা থেকে নিখোঁজ ফটোসাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজল৷ বিজিবি অনুপ্রবেশের অভিযোগে থানায় একটি মামলা করেছে’৷

বেনাপোল থানার এক পুলিশ কর্মকর্তা রাত তিনটার দিকে খবরটি কাজলের পরিবারকে জানান৷ এ সময় কাজলের সঙ্গে তার সন্তানের কথা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তার স্ত্রী জুলিয়া ফেরদৌসী৷ তিনি বলেন, ’আমার ছেলেকে ও ফোনে বলেছে, ’আব্বু আমি বেঁচে আছি, তোমরা সবাই আমাকে নিতে আস’৷


যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যটালিয়নের রঘুনাথপুর ক্যাম্পের কমান্ডার হাবিলদার আশেক আলী বলেন, ’বেনাপোলের সাদিপুর সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারত থেকে প্রবেশের সময় ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়৷ অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে তাকে আটক দেখিয়ে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে’৷



প্রসঙ্গত, সাংবাদিক কাজল পক্ষকাল পত্রিকার সম্পাদক। সাংবাদিক সমাজের বিবেক। এছাড়াও তিনি বণিক বার্তার ফটোসাংবাদিক। বর্তমানে তিনি পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন। কাজলে কেন বা কি কারণে নিখোঁজ ছিল তা এখনোও সঠিক ভাবে জানা যায়নি। বিজিবির হাতে ধরা পড়ার পড়ে তার পরিবারের সাথে কথা বলেন।

News Page Below Ad

আরো পড়ুন

Error: No articles to display