রোববার (১৩ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় সাতক্ষীরার শ্যামনগরে ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দিতে পরপর দুবার ’মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার’ স্থলে ’মাননীয় প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া’ বলায় জনরোষের শিকার হয়েছেন গুমানতলী ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল মুহিত।সঙ্গে সঙ্গেই উপস্থিত পুলিশ ও রাজনৈতিক নেতাদের ধাওয়ার মুখে শেষ পর্যন্ত তিনি ক্ষমা চেয়ে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ’জাতীয় দুর্যোগ প্রশমন দিবস’ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশে নির্মিত ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র উদ্বোধন করেন। এরই অংশ হিসেবে গুমানতলী ফাজিল মাদ্রাসায়ও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সাবেক সংসদ সদস্য একে ফজলুল হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বর্তমান সংসদ সদস্য এসএম জগলুল হায়দার।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল মুহিত শুভেচ্ছা বক্তব্য দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামের পরিবর্তে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ঘোষণা করেন।
এসময় উপস্থিত সাধারণ জনতা উত্তেজিত হয়ে ওঠেন। তাৎক্ষণিক অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য জগলুল হায়দার ও সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য একে ফজলুল হক অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল মুহিতকে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করার নির্দেশ দেন। তখন পালিয়ে রক্ষা পান তিনি।
স্থানীয় সংসদ সদস্য এসএম জগলুল হায়দার বলেন, তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।পরে অনুষ্ঠানের সভাপতি একে ফজলুল হক এবং সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য এসএম জগলুল হায়দার অধ্যক্ষকে উপযুক্ত শাস্তির আশ্বাস দিলে উপস্থিত জনতা শান্ত হয়।